শিরোনাম :
স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে জেলা আনসারও ভিডিপি’র বর্ণাঢ্য পতাকা র‌্যালী অনুষ্ঠিত ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিয়ের জন্য চাপ দেওয়াতে ইসলামপুরে তরুনীর আত্মহত্যা ঈদগাঁও রাবার ড্রাম পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির নিবার্চন সম্পন্ন সড়ক দূর্ঘটনায় মহেশখালী থানার পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু গণপরিবহনে হাফ ভাড়া চান চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীরাও কক্সবাজারে বিমান উড্ডয়নের সময় ধাক্কাতে ২ টি গরুর মৃত্যু : বড় দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা চকরিয়ায় ব্যালট পেপার বিনষ্টের অভিযোগে মামলা: প্রিজাইডিং অফিসার কারাগারে খুরুশকুল এলাকায় অভিযানে ১ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-আটক ১ কস্তুরাঘাট সংলগ্ন বাকঁখালী নদী এখন প্রভাবশালীর ব্যাক্তিগত জমি বদরখালীতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় নৌকা প্রার্থীর ভাগ্নেকে পিটিয়ে হত্যা

১৪দিন পর অপহৃত ফারুক কালির ছড়া থেকে উদ্ধার

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯
  • 113 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি, চকরিয়া :
অবশেষে অপহৃত মোহাম্মদ ফারুক (৪৭) কে অপহরণের ১৪দিন পর কক্সবাজার সদর উপজেলার কালিছড়া বাজারের দক্ষিণে মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় স্থানীয় জনগন গত ২৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে উদ্ধার করেছে। অপহরণকারীরা তাকে ছেড়ে দেয়ার আগে ৩টি অলিখিত ষ্টাম্পে টিপ নিয়ে ওই স্থানে ফেলে পালিয়ে যায়। সন্দ্যেহ করা হচ্ছে জায়গা জমি নিয়ে প্রতিপক্ষের সাথে বিরোধ থাকায় অপহরণকারীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তাকে হুমকি দেয়া হয়েছে ভবিষ্যতে ফাইতং এলাকায় যেন আর না যায়।
স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে অপহৃত ফারুকের মা নুরুন্নাহার অভিযোগ করে বলেন,গত ১১ সেপ্টেম্বর রাত ৮ টার দিকে লামা উপজেলার ফাইতং ষ্টেশন থেকে ২ অপহরণকারী মোটর সাইকেল করে মো: ফারুককে অপহরণ করে নিয়ে চকরিয়া উপজেলার বানিয়ার ছড়া বাস ষ্টেশনে এসে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা একটি হাইস মাইক্রোবাসে তুলে মুখ বেঁধে রেখে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে তিনি বাদী হয়ে লামা থানায় নিখোঁজ পুত্রের সন্ধানে একটি সাধারণ ডায়েরি নং ৫১৩/১৯ রুজু করেন।
ফারুক জানান, অপহরণকারীরা তাকে অহরণের রাত থেকে একটি পাকা দালান ঘরের রুমে এনে তার হাত পা খুলে দেয়। ফারুক জানে না ওই জায়গাটি কোথায় অবস্থিত। ওই ঘরে টানা ১২দিন ধরে আটকে রাখা হয়। মাঝে মধ্যে কিছু খাবার ও পানি এনে দিত মুখোশ পরিহিত লোক।

এদিকে ফারুক কালিরছড়া থেকে উদ্ধার হওয়ার পর কক্সবাজার সদর থানার নিয়ন্ত্রানাধীন ঈদগাও পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ প্রথমে লামা থানায় এ ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য মোবাইল ফোনে আলাপ করলে থানা পুলিশ এ ব্যাপারে লামা থানায় একটি জিডি লিপিবদ্ধ হওয়ার কথা স্বীকার করেন। পরে ঈদগাও পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ অপহৃত ফারুকের গ্রামের স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জে সাথে যোগাযোগ করলে তারা কোন সহযোগিতা করেনি বলে ফারুকের পরিবার থেকে অভিযোগ আনা হয়েছে। অপহৃত ফারুককে স্থানীয় লোকজন চকরিয়া সরকারী হাসপাতালে ওইদিন গভীর রাতে ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি সুস্থ্য রয়েছেন। ##

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT