সুগন্ধা পয়েন্টে দোকান করে সরকারি জমি দখলের প্রকৃয়া করছে সংঘবদ্ধ চক্র

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, অক্টোবর ১৮, ২০২১
  • 200 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
শহরের হোটেল মোটেল জোনে সুগন্ধা পয়েন্টে সরকারি জমি (ব্যাক্তিমালিকদের বন্দোবস্তি দেওয়া জমি) দখল করে রাতের আধারে দোকান নির্মাণ করছে কিছু প্রভাবশালী। উক্ত জমি নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা চলমান থাকার পরও কিছু প্রভাবশালী মাঝেমধ্যে এই জমি দখল করার পায়তারা করে বলে জানান বলে সচেতন মহল।
সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে হোটেল মোটেল জোনে সুগন্ধা পয়েন্টের সামনে শামীম গেষ্ট হাউজের বিপরীতে সরকারি জমিতে কয়েকদিন আগে একটি ভাসমান পালকি দোকান স্থাপন করা হয়। পরে গতরাতে আরো বেশ কয়েকটি দোকান গড়ে তুলে প্রভাবশালী চক্র। সেখানে গিয়ে দেখা গেছে টেকনাফ উপজেলার শাপলাপুর এলাকার শাখাওয়াত (বর্তমানে শহরের মোহাজেরপাড়ায় থাকে) নামের এক যুবক দোকান গুলো তদারকি করছে। এ সময় শাখাওয়াতের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,এগুলো সরকারি জমি। এক সময় জমি গুলো সরকার বন্দোবস্তি দিলেও পরে তা বাতিল করেছে। এখানে আমরা কয়েকজন ভাসমান দোকান করে কিছু বাড়তি আয় করার চেস্টা করছি। তবে পার্শবর্তী কয়েকজন জানান,মনছুর,শাখাওয়াত সহ কয়েকজন সরকারি জমি দখল করার পায়তারা করছে। তারা প্রথমে ভাসমান দোকান করে দখল নেবে পরে আস্তে আস্তে সব তাদের দাবী করবে এর পরে আলাদতে মামলা করে যুগ যুগ ধরে থাকবে। জানা গেছে শাখাওয়াত এক সময় চাঁদাবাজী মামলায় দীর্ঘদিন কারাগারে ছিল। এ সময় স্থানীয় ব্যবসায়ি কামরুল ইসলাম বলেন, উক্ত জমিটি সরকারের কাছ থেকে বন্দোবস্তি মামলা নং ৩৭/২০০২/২০০৩ মূলে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে ১/৩/২০০৫ সালে ঢাকা গুলশানের বাসিন্দা লাইফ রিসোর্ট লিঃ এর পক্ষে আকতার মাহমুদ রানা রেজিস্ট্রি করে নেয়। ২ একর জমি রেজিস্ট্রি নেওয়ার পর তিনি বহু বছর তা ভোগ দখলে ছিলেন পরে সরকার সেই বন্দোবস্তি বাতিল করলে তিনি উচ্চ আদালতে মামলা করে যা এখনো চলমান। কক্সবাজারে আমি উনার প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করি। এতদিন জমিটি খালী পড়ে থাকলেও হঠাৎ দেখি ২/৩ দিন আগে একটি পালকি দোকান করেছে। পরে গতকালকে দেখছি বেশ কয়েকটি দোকান বসে গেছে। আমার ধারনা মতে কেউ উদ্দ্যেশ্য মূলক এবং দখল করার জন্যই এই দোকান গুলো করছে। পরে বিষয়টি আমি সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি কে জানিয়েছি তিনি ব্যবস্থা নেওয়ার আশ^াষ দিয়েছেন। এ ব্যপারে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি ) নু এ মং মারমা মং বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি দ্রæত এ ব্যপারে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT