শিরোনাম :
মাতারবাড়ি প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনার জম্মদিন উপলক্ষ্যে ঈদগাঁওতে ১ হাজার ৫শ জনের মাঝে টিকা আইসক্রিম বিক্রেতা থেকে কোটিপতি রোহিঙ্গা জালাল : নেপথ্যে ইয়াবা ব্যবসা সিনহা হত্যা মামলার চতুর্থ দফা সাক্ষ্যগ্রহন শুরু উখিয়ার রোহিঙ্গা ছৈয়দ নুরের এনআইডি বাতিল করতে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কলাতলীতে হোটেল দখলে নিতে তৎপর প্রতারক চক্র অবাধ তথ্য প্রবাহ দূর্নীতি প্রতিরোধে সহায়ক ভুমিকা রাখতে পারে : সুজনের আলোচনা সভায় বক্তারা ফাঁদে ফেলে ব্ল্যাকমেইল করতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নারী শিক্ষক ২০ হাজার ইয়াবা সহ আটক ১ জেলার বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রাসায় কর্মরত রোহিঙ্গাদের সরকারি সুযোগ সুবিধা বাতিলের দাবীতে আবেদন

সিএনবি কলোনীর মেয়াদোর্ত্তীন ইট যাচ্ছে খুরুশকুল আশ্রয়ন প্রকল্পের রাস্তা নির্মাণ কাজে

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৬, ২০২০
  • 442 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

মাহাবুবুর রহমান.
কক্সবাজার শহরের পরিত্যাক্ত সিএনবি কলোনীর অর্ধশত বছরের পুরানো ইট দিয়ে নির্মাণ হচ্ছে খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের রাস্তা। সরজমিনে গিয়ে সিএনবি কলোনী থেকে সেই মেয়াদোত্তীর্ণ ইট ভেঙ্গে খুরুশকুল আশ্রয়ন প্রকল্পের রাস্তা নির্মাণ কাজে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানান সেখানে দায়িত্বরতরা। আর এই কাজে আছেন বেশ কয়েকজন ঠিকাদার এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। এলাকাবাসীর দাবী খুরুশকুল আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজে দীর্ঘদিন ধরে ব্যাপক অনিয়ম দূর্নীতি হয়ে আসছে তবে সেগুলো দেখার কেউ নেই বরং বিভিন্ন বাহিনির নাম ব্যবহার করে দাবিয়ে রাখা হয়।
১৫ জুলাই সকালে সরজমিনে শহরের বইল্যা পাড়াস্থ প্রাক্তন সিএনবি কলোনীতে গিয়ে দেখা গেছে সেখানে বেশ কয়েকজন শ্রমিক ইট ভাংছে তাদের কাছে জানতে চায়লে জহির নামের একজন জানান,এগুলো আমরা নিলামে কিনে নিয়েছে এখন মাঠে ভেঙ্গে খুরুশকুলের কুলিয়াপাড়ায় জমা করেছি সেখান থেকে খুরুশকুল আশ্রয়ন প্রকল্পের রাস্তা নির্মাণ কাজে এসব ইট ব্যবহার করা হচ্ছে। পরে জহিরের কথা সূত্র ধরে কুলিয়াপাড়া শ্নষানের পাশে দিয়ে দেখা গেছে সেখনে খালী মাঠে সিএনবি কলোনীর সেই ইটগুলোর স্তুপ করা হয়েছে সেখানে কর্মরত কয়েকজন শ্রমিক জানান,এগুলো খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এর আগেও এসব ইট ব্যবহার করা হয়েছে। আর এসব কাজের জন্য বেশ কয়েকজন ঠিকাদার আছে বলে জানান তারা। এ ব্যপারে খুরুশকুল কুলিয়াপাড়ার সোলাইমান নামের স্থানীয় যুবক বলেন,খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজে দীর্ঘদিন ধরে বহু অনিয়ম হয়ে আসছে সে গুলো এখন আর বলে কি হবে কারন কাজতো শেষ। ইতি মধ্যে স্থাণীয় জনপ্রতিনিধি সেই আশ্রয়ণ প্রকল্পকে ঘিরে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। নির্বাচনের আগে এবং বর্তমান অবস্থা দেখলেই সব বুঝা যাবে। আবার এগুলো নিয়ে কেউ প্রতিবাদও করতে পারেনা। শুনেছি বিভিন্ন বাহিনির ভয় দেখিয়ে সবাইকে চুপ করিয়ে দেয়। এ সময় নাম প্রকাশ না করে খুরুশকুল ইউনিয়নের বর্তমান এক জনপ্রতিনিধি জানান,বাংলাদেশ সরকার উপর থেকে ঠিকই জনগনের জন্য বরাদ্ধ করে কিন্তু মাঠে পর্যায়ে এসে তার কয়েকভাগ মাত্র পৌছে। আর বর্তমানে খুরুশকুল আশ্রয়ন প্রকল্পে যে হাজার কোটি টাকার কাজ হচ্ছে সেখানে বেশির ভাগ কাজই হচ্ছে খুবই নি¤œমানের। আর সব কাজের দায়িত্ব আমাদের শীর্ষ জনপ্রতিনিধির। তার উপরে এখানে কেউ কথা বলতে পারেনা। কেউ সামান্য প্রতিবাদ করলেই নেমে আসে বিভিন্ন নির্যাতন।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT