শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চোরাই পণ্যের ব্যবসা জমজমাট কক্সবাজারের দুই পৌরসভা ও ১৪ ইউপিতে ভোট ২০ সেপ্টেম্বর রামু উপজেলা পরিষদের সৌন্দর্য্য নষ্ট করে দোকান বরাদ্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ঈদগাঁও বটতলী-ইসলামপুর বাজার সড়কের বেহাল দশা আইসক্রিম বিক্রেতা থেকে কোটিপতি রোহিঙ্গা জালাল : নেপথ্যে ইয়াবা ব্যবসা পৌর কাউন্সিলার জামশেদের স্ত্রী‘র ইন্তেকাল : সকাল ১০ টায় জানাযা উখিয়ায় বিদ্যুৎ পৃষ্টে একজনের মৃত্যু কক্সবাজারে বেড়াতে এসে অতিরিক্ত মদপানে চট্টগ্রাম ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু টেকনাফে নৌকা বিদ্রোহীদের জন্য কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে; সাবরাং পথসভায় মেয়র মুজিব ৮ হাজার পিস ইয়াবা, যৌন উত্তেজক সিরাপ নগদ টাকা সহ আটক ১

সম্প্রতী ওসি প্রদীপের মিথ্যা মামলার স্বীকার হয়েছে সেন্টমার্টিন ইউপির ৪ মেম্বার সহ ৯ জন

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, আগস্ট ৮, ২০২০
  • 265 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

কক্স৭১
জাল চুরির ঘটনায় আটক করে ২ দিন পর ইয়াবা উদ্ধার দেখিয়ে মিথ্যা মামলার স্বীকার হয়েছে সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের ৪ মেম্বার সহ ৯ জন
বার্তা পরিবেশক
জাল চুরির ঘটনায় ২ জেলেকে সেন্টমার্টিন থেকে আটক করার ২ দিন পর শাহপরীরদ্বীপ থেকে ইয়াবা উদ্ধার দিখিয়ে সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের বর্তমান ৪ জন মেম্বার সহ ৯ জন নিরীহ মানুষকে মিথ্যা মামলায় ফাসিঁয়েছে টেকনাফ থানার বির্তকিত সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। মিথ্যা মামলায় আসামী হয়ে বর্তমানে মানবেতন জীবন যাপন করছে সে সব জনপ্রতিনিধিরা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে একটি জাল চুরি সংক্রান্ত ঘটনায় ২৯ জুলাই সেন্টমার্টিন থেকে জুবায়ের এবং আজিম নামের ২ জন ব্যাক্তিকে আটক করে টেকনাফ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তখন তাদের কাছ থেকে কোন মাদক বা কিছুই উদ্ধার করেনি। ঘটনায় ২ দিন পর৩১ জুলাই মধ্য রাতে টেকনাফ শাহপরীরদ্বীপ জেটি ঘাটের মাথায় ৪ হাজার ইয়াবা নিয়ে তাদের আটক দেখিয়ে সেই সাজানো ঘটনায় সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের বর্তমান ৪ জন মেম্বার সহ ৯ জন মানুষকে আসামী করেছে সেই বিতর্কিত ওসি প্রদীপ। যার নাম্বার ১৫৭ তারিখ ৩১/৭/২০২০ আর মিথ্যা মামলায় আসামী হওয়া জনপ্রতিনিধিরা হলেন সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবু বক্কর,৯ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য আবদুর রব,৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ফরিদ এবং ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রশিদ।এছাড়া সেই মিথ্যা মামলায়আসামী করা হয়েছে আবদুর রহমান পিতা লাল মিয়া,মোঃ রনি পিতা লাল মিয়া.মোহাম্মদ আলম পিতা মকবুল মেম্বার তারাও সেন্টমার্টিনের লোক। মামলার বাদী টেকনাফ থানার আরেক বিতর্কিত এসআই দিপক বিশ^াষ এজাহারে উল্লেখ করেছেন। ধৃত আসামী আজিম সহ অন্যান্যরা ইয়াবা বেচাবিক্রি করার জন্য সেখানে জড়ো হয় এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামীরা পালিয়ে যায় কিন্তু আজিমকে ধরতে সক্ষম হয়। তা সম্পূর্ন সাজানো নাটক কারন তাকে ২৯ জুলাই আটক করেছে যা সেন্টমার্টিনের হাজার হাজার মানুষ সহ বিভিন্ন আইনশৃংখলা বাহিনি অবগত আছে। এ ব্যাপারে সেন্টমার্টিন ইউপির চেয়ারম্যান আলহাজ নুর আহামদ বলেন,২৯ জুলাই জুবায়ের এবং আজিমকে সেন্টমার্টিন থেকে জাল চুরি সংক্রান্ত বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ আটক করে। বিকালে তাদের টেকনাফ থানায় নিয়ে জায়। পরে তাকে নিয়ে ইয়াবা নামক নাটক জানিয়ে সম্পূর্ন বিনা অপরাধে আমার পরিষদের মেম্বারদের ফাঁসানো হয়েছে। আমি হলফ করে বলতে পারি কুরবানীর একরাত আগে কোন মানুষ কেন শাহপরীরদ্বীপ যাবে এটা সম্পূর্ন মিথ্যা এবং বানোয়াট মামলা। আমি এই মিথ্যা মামলা থেকে মেম্বার সহ অন্যান্য ব্যাক্তিদের নাম প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি। সচেতন মহলের দাবী বর্তমানে কারাগারে থাকা ওসি প্রদীপ এভাবে সাধারণ মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে পরে চাঁদা আদায় করে আসছিল। এর আগেও বহু মানুষকে এভাবে মামলা দিয়ে হয়রানী করেছে। এদিকে এই মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতি পেতে প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেছি সেন্টামার্টিন ইউনিয়নের ৪ মেম্বার সহ ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT