শিরোনাম :
টেকনাফে পুলিশের উপর হামলাকরে আসামী ছিনতাই : ইউপি সদস্য আটক ফের অস্ট্রেলিয়াকে হারাল টাইগাররা প্রযোজক রাজের বাসায় র‍্যাবের অভিযান ঘর নদীতে পড়ে যাওয়ার চিন্তায় ঘুমাতে পারছেনা চাকমারকুল ইউপির ৩ গ্রামের মানুষ রামুতে অসহায়দের মানবিক সহায়তা দিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক ‘সুজন’ দর্জি দোকানের কর্মচারীথেকে নেতা মনির : ৪ দিনের রিমান্ডে পরীমনির বাসায় অভিযান সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে : র‌্যাব বৌভাতে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে ১৭ বরযাত্রীর মৃত্যু প্রসাধনীর আড়ালে চকরিয়া কুরিয়ারে মিলল ৭০ লক্ষ টাকার ইয়াবা, পাচারকারী আটক সুজন জেলা কমিটির পক্ষ থেকে বন্যাদূর্গতদের মাঝে অর্থ সহায়তা প্রদান

সমুদ্র সম্পদের টেকসই ব্যবস্থাপনায় মেঘা প্রকল্প হাতে নিচ্ছে সরকার

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, মে ২৯, ২০১৯
  • 198 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

 

মাহাবুবুর রহমান.
বাংলাদেশের সমুদ্র সম্পদ সুরক্ষা ও টেকসই ব্যবস্থাপনা বিষয়ে আরো গুরুত্বারুপ করেছে সরকার। আমাদের পূর্বের জলসীমার সাথে যোগ হওয়া জনসীমা সহ বিস্তীর্ন সমুদ্র সম্পদকে দেশের মানুষের সার্বিক উন্নয়নের কাজে লাগাতে মেঘা প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। আর এই প্রকল্পের মাধে দীর্ঘ মিয়াদী ভাবে সমুদ্র সম্পদকে রক্ষা এবং তার শতভাগ ব্যবহার নিশ্চিত করতে কাজ করছে সরকার। কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা মৎস অফিস কতৃক আয়োজিক স্থায়ীত্বশীল সমুদ্র সম্পদ সুরক্ষা এবং ব্যবস্থাপনা বিষয়ক এক কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন। কর্মশালায় বলা হয় বাংলাদেশের সামুদ্রিক জলসীমার পরিমাণ ১ লাখ ১৮ হাজার ৮১৩ বর্গ কিলোমিটার,উপকূলীয় অঞ্চলের দৈর্ঘ্য ৭১০ কিলোমিাটর, জেলে সংখ্যা ৫ কোটি ১৬ লাখ এর মধ্যে দেশের ১৬ টি জেলার ৭৫ টি উপজেলার ৭৫০ টি ইউনিয়ন নিয়ে এই মেঘা প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে সরকার। সেখানে সামুদ্রিক মাছের উপর গবেষনা থেকে শুরু করে সামুদ্রিক সম্পদের যথাযথ ব্যবহার,জেলেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করণ,জেলেদের আইডি কার্ড প্রদান,পরিবেশ বান্ধব ট্রলার থেকে শুরু করে মাঝিমাল্লাদের ব্যবহারে সামুদ্রিক সম্পদ আহরণ এবং মাছের প্রজনন বৃদ্ধিতে সহায়তা করণ। জেলেদের জন্য মাছ বিক্রি,সাগরে নিরাপদে যাতায়তের জন্য লাইটিং এর ব্যবস্থা,জেলে পরিবারের জন্য বিশেষ প্রকল্প সহ নিয়ে মেঘা প্রকল্প হাতে নিচ্ছে সরকার। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন বলেণ,২০১৫ সালে ভারতের সাথে সমুদ্র বিজয়ের মাঝে আরো নতুন বিশাল এলাকায় বাংলাদেশ জয় করেছে আমরা এখন সমুদ্রকে ভাল মতে ব্যবহার করতে পারলে দেশের জন্য কল্যাণ হবে সে জন্য এই মেঘা প্রকল্প সবার জন্য মঙ্গল জনক। এ সময় প্রাসঙ্গিক বক্তব্যে তিনি বলেণ,৬৫ দিন সাগরে যেতে না পেরে জেলেদের চরম দুঃসময় পার করছে সে জন্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রতি মাসে ৪০ কেজি করে চাল সহ আরো বেশ কিছু সহায়তা করা হবে। এছাড়া যে সব জেলেদের কার্ড নেই তাদের স্থানীয় ভাবে সহায়তা করা হবে বলে জানান তিনি। কক্সবাজারের জেলা মৎস অফিসার এস.এম খালেকুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তারা দাবী করেন,মাছের প্রজনন বাড়াতে সাগরে অবরোধ দেওয়াকে স্বাগত জানাই তবে এমন ভাবে অবরোধ দেওয়া উচিত যখন পার্শবর্তি দেশ গুলোও একই সময়ে অবরোধ দেয়। কারন বাংলাদেশের জেলেরা সাগরে না গেলেও পার্শবর্তি দেশের জেলেরা ঠিকই অনুপ্রবেশ করে সাগর থেকে মাছ ধরে নিয়ে যায়। এছাড়া কোন রোহিঙ্গাকে মৎসজীবি কার্ড না দিতে অনুরোধ জানানো হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মাসুদুর রহমান মোল্লা,অধীর চন্দ্র দাশ উপ প্রকল্প পরিচালক সাস্টেনেবল কোস্টাল এন্ড মেরিন ফিজারিজ, আবদুল্লাহ আল মামুন সহকারী পরিচালক, বিমান বাহীনির লেঃ হারুন কোস্টা গার্ডের কর্মকর্তা সিকান্দার আলী,জেলা শিক্ষা অফিসার ছালাহউদ্দিন আহামদ চৌধুরী,জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মোঃ নুরুল আমিন,জেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার মোঃ শাহজাহান,বোট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক দোলোয়ার হোসাইন,সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহামদ,সাংবাদিক মাহাবুবুর রহমান,সেবের সচিব এস এম বাবর,মহেশখালী জেলা প্রতিনিধি মিজানুর রহমান প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT