শীর্ষ নদী দখলকারী এড,খালেক নির্বাচনে অযোগ্য

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৯
  • 103 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

কক্সবাজারের মহেশখালীর শাপলাপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থীকে অযোগ্য ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট।তালিকাভূক্ত নদী দখলকারী হওয়ায় মহেশখালীর শাপলাপুর ইউপি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আবদুল খালেক চেয়ারম্যানকে অযোগ্য ঘোষণা করেন উচ্চ আদালত।
বুধবার সকালে হাইকোর্টের বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খন্দকার দেলিরুজ্জামানের আদালত এই রায় দেন। সহকারী এ্যাটর্নি জেনারেল সিদ্দিক সাইফ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। খালেক চেয়ারম্যানের প্রার্থীতা বাতিলের জন্য আবেদন করেছিলের চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হক। যার রিট পিটিশন নাম্বান ১৩২০৮/২০১৯।

হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে আব্দুর খালেককে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছিলো ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ।

আগামী ১২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য কক্সবাজার মহেশখালীর শাপলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনু্ষ্টিত হবে। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় নৌকার প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছিলেন বিআইডব্লিউটিএ’র তালিকাভূক্ত নদী দখলকারী ও মহেশখালী উপজেলা বিএনপির সাবেক নেতা আব্দুল খালেক চৌধুরী।

কক্সবাজারে বাঁকখালী নদী দখলের কারনে বাংলাদেশ নদী কমিশনের তালিকাভুক্ত দখলকারী হিসেবে নাম রয়েছে মহেশখালীর শাপলাপুরের আব্দুল খালেক চেয়ারম্যানের।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ নদ-নদী দখলের অভিযোগে অভিযুক্ত কোন ব্যক্তি যাতে জাতীয় বা স্থানীয় কোন ধরনের নির্বাচনে অংশ নিতে না পারেন এবং একইসাথে কোনও ব্যাংক ঋণও না পান এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে যথাক্রমে নির্বাচন কমিশন ও বাংলাদেশ ব্যাংকে নির্দেশ দিয়েছেন।

একই নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়েছেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড.মুজিবুর রহমান হাওলাদার।

জানা যায়, আব্দুল খালেক দীর্ঘ ২০ বছর বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রকাশিত বই ‘সমৃদ্ধ কক্সবাজার’ ও ‘তৃণমূল’ নামে দু’টি বইয়ে আব্দুল খালেকের নাম পরিচয় রয়েছে গ্রামের ঠিকানাসহ। এছাড়া কক্সবাজার বিএনপি’র জেলা কমিটির তালিকায় এখনো নাম আছে তার।

মহেশখালী থানা বিএনপির সভাপতি ড. আব্দুল মোতালেব-সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম’র কমিটির ২৮ নম্বর সদস্য ছিলেন সদ্য নৌকা প্রতীকে চেয়ারম্যান নির্বাচনের মনোনয়ন পাওয়া এই আব্দুল খালেক।

অভিযোগ আছে ২০১৪ সালের নির্বাচনের পরে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করেন বহুল আলোচিত খালেক চেয়ারম্যান। মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ এক নেতার আত্মীয় হওয়ার সুযোগ নিয়ে মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বনে যান আব্দুল খালেক।

মহেশখালী উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল করিম বলেন, ক্ষমতা বদলের সাথে সাথে রূপ বদলে যায় খালেকের। এক সময় তিনি বিএনপি’র রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকলেও পরবর্তী সময়ে সুবিধাবাদী হিসেবে তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT