শিরোনাম :

শততম রেকর্ডের দ্বারপ্রান্তে কক্সবাজার থিয়েটারের দর্শক নন্দিত নাটক ‘টু ইডিয়টস’

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯
  • 414 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

মাহাবুবুর রহমান.

কক্সবাজার জেলার মঞ্চনাটকে ইতিহাস রচনা করতে চলেছে জেলার অন্যতম প্রধান নাট্যদল কক্সবাজার থিয়েটার। আগামী ৪ঠা মে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা মঞ্চে কক্সবাজার থিয়েটারের দর্শক নন্দিত নাটক ‘টু ইডিয়টস’ এর শততম মঞ্চায়নের মাধ্যমে জেলার নাটকের ইতিহাসে কোন মঞ্চনাটকের শততম মঞ্চায়ন সম্পন্ন হতে যাচ্ছে। ঢাকার অন্যতম প্রধান নাট্যদল নাট্যতীর্থ আগামী ১লা মে থেকে ৫ই মে পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় ‘শতকে বিদ্যমান সহ¯্ররে আহ্বান’ এই শ্লোগান নিয়ে শতরজনী নাট্যমেলা ২০১৯ আয়োজন করেছে। এই নাট্য মেলায় প্রতিটি নাটকের শততম মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হবে। নাট্যতীর্থের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে কক্সবাজার থিয়েটার ঢাকায় ‘টু ইডিয়টস’ নাটকের শততম মঞ্চায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইতিমধ্যে কক্সবাজার থিয়েটার এই নাটকের শততম মঞ্চায়নের প্রস্তুতির জন্য প্রতিদিন মহড়া অব্যাহত রেখেছে। গত ২৭শে মার্চ সন্ধ্যে সাতটায় স্থানীয় কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্র মিলনায়তনে বিশ্বনাট্য দিবসের অনুষ্ঠানে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক জনাব কামাল হোসেন ও ভারতীয় দূতাবাস, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সেকেন্ড সেক্রেটারী শুভাশীষ সিনহার উপস্থিতিতে ‘টু ইডিয়টস’ নাটকের ৯৯তম প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছিল।
রুশ গল্পকার আন্দ্রে সালতিকভ শ্চেদ্রিনের ছোটগল্প অবলম্বনে ভারতের প্রখ্যাত নাট্যকার চন্দন সেনের ‘দুই হুজুরের গপ্পো’ নাটকটির রূপান্তর ও নির্দেশনা দিয়েছেন বিশিষ্ট নাট্যকার ও নির্দেশক স্বপন ভট্টাচার্য্য। বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান ভূক্ত জেলার অন্যতম নাট্যদল হিসেবে কক্সবাজার থিয়েটার ইতিমধ্যে অনেক মঞ্চসফল নাটক মঞ্চায়ন করেছে। জেলা এবং জাতীয় পর্যায়ে কক্সবাজার থিয়েটারের নাটক দর্শকদের প্রশংসায় ধন্য হয়েছে। এতে নাট্যচর্চায় জাতীয় পর্যায়ে কক্সবাজার জেলার নাট্যাঙ্গনের সুনাম অর্জিত হয়েছে নিঃসন্দেহে। ১৯৯৪ সালে স্থানীয় ইনষ্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে মঞ্চস্থ হওয়া ‘টু ইডিয়টস’ নাটকের কলাকুশলীদের মধ্যে অনেকেই জীবনজীবিকার তাগিদে কক্সবাজার শহরের বাইরে কিংবা নানান কারনে নিস্ক্রিয় রয়েছে। বারে বারে বদল হয়েছে এই নাটকের পাত্র পাত্রী। তবু হাল ছাড়েনি কক্সবাজার থিয়েটারের তারুন্য নির্ভর দলগত শক্তি। নাটকটির শততম মঞ্চায়ন প্রসংগে দলের সাধারণ সম্পাদক ও টু ইডিয়টস নাটকের শুরু থেকে অদ্যবধি একই চরিত্রের একমাত্র অভিনেতা জেলার অন্যতম সাংস্কৃতিক সংগঠক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক এডভোকেট তাপস রক্ষিত জানান যে, ইতিমধ্যে কক্সবাজার থিয়েটার অনেক মঞ্চসফল নাটক দর্শকদের উপহার দিয়েছে। কিন্তু দর্শকদেরক ক্রমাগত অনুরোধের কারনে বার বার এই নাটকটিকে মঞ্চে সচল রাখতে হয়েছে। নাটকটি ঢাকা, চট্টগ্রাম, চাঁদপুর সহ কক্সবাজারের রামু উপজেলায় বেশ কয়েকবার মঞ্চস্থ হয়েছে। নাটকের মূল নাট্যকার চন্দন সেন শততম মঞ্চায়নে অভিনন্দন ও কক্সবাজার জেলার সকল নাট্যকর্মিদের শুভকামনা জানিয়েছেন। নাটকের নির্দেশক স্বপন ভট্টাচার্য্য জানান, ‘টু ইডিয়টস’ সাম্যবাদী জীবনধারার এক অনুপম রচনা। কক্সবাজারে নাট্যচর্চার প্রচুর সীমাবদ্ধতার মধ্যেও দর্শকদের ভালবাসা আর পৃষ্ঠপোষকতায় কক্সবাজার থিয়েটার নিয়মিত নাট্যচর্চা অব্যাহত রেখেছে। দলের তরুন নাট্যকর্মিদের উদ্দাম আর উচ্ছাসে ছোটখাট বাধা অতিক্রম করা গেছে অনায়াসে। তাই এ নাটকের শততম মঞ্চায়নের সকল কৃতিত্ব দলের সেইসব কর্মিদের প্রাপ্য। সত্যিই তাই, মফস্বল শহরে একটি নাটক শততম মঞ্চায়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে এর চাইতে বড় প্রাপ্তি আমাদের আর কি আছে। জয়তু কক্সবাজার থিয়েটার, জয় হোক আপোষহীন এই সব নাট্য কর্মির।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT