শিরোনাম :
টেকনাফে পুলিশের উপর হামলাকরে আসামী ছিনতাই : ইউপি সদস্য আটক ফের অস্ট্রেলিয়াকে হারাল টাইগাররা প্রযোজক রাজের বাসায় র‍্যাবের অভিযান ঘর নদীতে পড়ে যাওয়ার চিন্তায় ঘুমাতে পারছেনা চাকমারকুল ইউপির ৩ গ্রামের মানুষ রামুতে অসহায়দের মানবিক সহায়তা দিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক ‘সুজন’ দর্জি দোকানের কর্মচারীথেকে নেতা মনির : ৪ দিনের রিমান্ডে পরীমনির বাসায় অভিযান সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে : র‌্যাব বৌভাতে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে ১৭ বরযাত্রীর মৃত্যু প্রসাধনীর আড়ালে চকরিয়া কুরিয়ারে মিলল ৭০ লক্ষ টাকার ইয়াবা, পাচারকারী আটক সুজন জেলা কমিটির পক্ষ থেকে বন্যাদূর্গতদের মাঝে অর্থ সহায়তা প্রদান

রামু শ্রীকুলের সৌরেন্দ্র বড়ুয়া’র বাড়ি পুড়ে ছাই: খোলা আকাশের নিছে নিঃশ্ব পরিবার

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯
  • 146 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

নীতিশ বড়ুয়া, রামু
কক্সবাজারের রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের শ্রীকুল গ্রামের বাসিন্দা সৌরিন্দ্র মোহন বড়ুয়ার বসত ঘরে অগ্নিকান্ডে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
রোববার (১৫ ডিসেম্বর) দিনগত রাত দুইটার দিকে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সর্বস্ব হারিয়ে তিনি এখন নিঃস্ব তার স্ত্রী, ছেলে পুলক বড়ুয়া, সুমন বড়ুয়া ও কানন বড়ুয়া রুমনসহ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে।
স্থানীয়রা জানায়, বৃদ্ধ বাবার চিৎকারে ঘুম ভাঙ্গে পাশের রুমে থাকা ছেলের। ততক্ষনে আগুন পুরো ঘরে ছড়িয়ে গেছে। বিছানা থেকে ওঠে দৌড়ঝাঁপ দিয়ে ঘরে থাকা দশমাস বয়সী দু’টি শিশুকে আগুনের ভেতর থেকে বের করে জীবন বাঁচানো সম্ভব হলেও শুধুমাত্র পরনের কাপড়টি ছাড়া আর কিছুই রক্ষা করতে পারলোনা এ পরিবারটি।
শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ,থালাবাসন থেকে শুরু করে অগ্নিকান্ডে সবকিছুই পুড়ে গেছে। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অন্তত পনেরো লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হতেপারে বলে ধারনা করছে নিশ্ব: পরিবারের সদস্যরা।
ঘটনার পর পর রাত তিনটার দিকে ঘটনাস্থলে ছুটে যান রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রনয় চাকমা ও রামু থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক মংছাই মারমা।
ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির সদস্য রামু খিজারী বার্মিজ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক ও নৈশ প্রহরী কানন বড়ুয়া জানান, রাত আড়াইটার দিকে তার বাবার চিৎকারে হঠাৎ তাদের ঘুম ভাঙ্গে। ততক্ষনে দেখেন আগুন বাড়ির সবখানে ছড়িয়ে গেছে। এ সময় ঘরে তার ও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী ও তাদের দশ মাস বয়সী দুই শিশুও ছিল। তারা আলাদা রুমে ঘুমন্ত অবস্থায় ছিল।
রুমন জানান, এ সময় দ্রুত ঘুম থেকে জাগিয়ে দুই শিশুসহ সবাইকে ঘর থেকে বের করে নিয়ে আসি। ততক্ষনে আগুন আরও বেড়ে যাওয়ায় আর ঘরে ঢোকা সম্ভব হয়নি। যে কারণে পরনের কাপড়টি ছাড়া আর কিছুই রক্ষা করা যায়নি।
স্থানীয় বাসিন্দা ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী তাপস মল্লিক জানান, রাতের বেলায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটায় কিছুই রক্ষা করা সম্ভব হয়নি। কোন প্রাণহানি হয়নি এটাই বড় বিষয়। সবচেয়ে বড় বিষয় ঘরে থাকা দশ মাস বয়সী দুটি শিশুকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।
তিনি বলেন, অগ্নিকান্ডে পরিবারটি একেবারে নিঃস্ব। সবকিছু হারিয়ে তাদের মাথার উপরে খোলা আকাশ ছাড়া আর কিছুই নেই। এমন পরিস্থিতিতে পরিবারটির সহযোগিতা দরকার। রামু থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মংছাই মার্মা জানান, ঘরে আগুন যখন লাগে তখন পরিবারের সবাই ঘুমে ছিল। যে কারণে ঘরের কিছুই রক্ষা করা সম্ভব হয়নি। তবে সবচেয়ে বড় বিষয় দুই শিশুসহ সবাই রক্ষা পেয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT