রামুতে ৫০ শয্যার আইসোলেশন ও কোয়েরেন্টাইন ইউনিট স্থাপন

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, মার্চ ১২, ২০২০
  • 52 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

খালেদ শহীদ রামু
বিশ্ব আতংক করোনা ভাইরাস সংক্রমন, নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে রামুতে ৫০ শয্যার আইসোলেশন ও কোয়েরেন্টাইন ইউনিট স্থাপনা করা হয়েছে। কক্সবাজারে বসবাসরত কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সনাক্ত হলেই,রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেবিশেষব্যবস্থায়করোনাভাইরাসসংক্রমনপ্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে চিকিৎসা সেবাপ্রদানকরাহবে। নবনির্মিতরামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেরতিনতলাভবনের ২০টি কেবিনে ও তিনটিওয়ার্ডে করোনাভাইরাস (ঈঙঠওউ-১৯) আক্রান্ত রোগীদেরচিকিৎসা সেবাদিতেআইসোলেশন ও কোয়েরেন্টাইনইউনিট, প্রয়োজনীয়সংখ্যকচিকিৎসক, নার্স, চিকিৎসাসামগ্রী ও মাস্ক-পিপিইমজুদ রাখাহয়েছে। সর্বদাপ্রস্তুত রয়েছেআইসোলেশনকমিটি, জরুরী রেসপন্সটীমএবং কন্ট্রোলরুম। বৃহস্পতিবার(১২ মার্চ) দুপুরেনবনির্মিতরামুতে ৫০ শয্যারআইসোলেশন ও কোয়েরেন্টাইনইউনিটপর্যবেক্ষণকালে সাংবাদিকদের এ সব তথ্য জানান, রামুউপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবারপরিকল্পনাকর্মকর্তাডা. নোবেলকুমারবড়–য়া। এ সময়উপস্থিত ছিলেন, রামুউপজেলাপরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলাআওয়ামীলীগসভাপতি সোহেলসরওয়ারকাজল, রামু প্রেসক্লাবেরসাবেকসভাপতিখালেদ শহীদ, উপজেলাযুবলীগসাধারণসম্পাদকসাংবাদিকনীতিশবড়–য়া, রামুরিপোর্টার্স ইউনিটি’রসাবেকসভাপতি সোয়েবসাঈদ, সহকারিস্বাস্থ্য পরিদর্শক দর্পণবড়–য়া ও আজমখান,রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেরকম্পিউটারঅপারেটর দিপঙ্কর বড়–য়া ধীমান।
স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রণালয়ে গত ৪ মার্চ স্বাস্থ্য মন্ত্রীরসভাপতিত্বে অনুষ্ঠিতসভারসিদ্ধান্তেকক্সবাজারেররামুতেনবনির্মিত৫০ শয্যারহাসপাতালটিউদ্বোধনেরআগেইজরুরীভিত্তিতেকরোনাভাইরাসসংক্রমন, নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধেআইসোলেশন ও কোয়েরেন্টাইনইউনিট স্থাপনাকরাহয়েছেবলেজানিয়ে ডা. নোবেলকুমারবড়–য়াবলেন, বিশে^ এখনঅন্যতমআতংককরোনাভাইরাস। বাংলাদেশেরপ্রতিবেশী দেশ ভারতেওকরোনাভাইরাসেরপ্রকোপ দেখা দিয়েছে। প্রাণী থেকে মানুষের দেহে আসে এই ভাইরাস। মানুষ থেকে মানুষের দেহে ছড়ায় এই ভাইরাস। নিয়মিতমুখ-হাত ধোয়াঅভ্যাসকরতেহবে। বিদেশ থেকে যারাআসবেন, তাদেরবিষয়েওসর্তক থাকতেহবেআমাদের। প্রবাসীদেরঅন্তত ১৪ দিনপর্যবেক্ষনে থাকতেহবে। করোনাভাইরাসবিষয়েআমাদেরসকলকেসর্তক থাকবেহবে।
বুধবারবিকালেজরুরীভিত্তিতেরামুতে ৫০ শয্যারআইসোলেশন ও কোয়েরেন্টাইনইউনিটপরিদর্শনকরেন, কক্সবাজার জেলাপ্রশাসক মো. কামাল হোসেন। এ সময়তিনিবলেন, করোনাভাইরাসনিয়েঅহেতুকআতংকিতহবেনা। আমাদেরপ্রত্যেককে এ ব্যাপারেসর্তক থাকতেহবেএবং তথ্য দিয়েপ্রশাসনকেসহায়তাপ্রদানকরারআহ্বানজানিয়েকক্সবাজার জেলাপ্রশাসকবলেন, করোনাভাইরাসনিয়ে কেউ গুজব ছড়ালে, তাদেরবিরুদ্ধে কঠোরআইনানুগব্যবস্থা নেয়াহবে। এ সময়কক্সবাজারসিভিলসার্জন ডা. মো. মাহবুবুররহমান, রামুউপজেলানির্বাহীঅফিসারপ্রণয়চাকমা, রামু থানারঅফিসারইনচার্জ মো. আবুলখায়েরউপস্থিত ছিলেন।
সম্প্রতিকক্সবাজার স্বাস্থ্য বিভাগেআয়োজিত এক সভায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরেরপরিচালক (পরিকল্পনা ও গবেষনা) ডা. ইকবালকবীরের বক্তব্যের উদ্ধৃতিদিয়েরামুউপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবারপরিকল্পনাকর্মকর্তা ডা. নোবেলকুমারবড়–য়া বলেন, কক্সবাজার জেলায় রোহিঙ্গাদের কারণেঅনেক বিদেশীর অবস্থানকরছেন। তাইকক্সবাজার জেলাকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। যারাচীন, ইতালি, হংকং, ইরান থেকে আসবে, তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষাকরারজন্য অবশ্যইআইসোলেশনইউনিটেরাখাহবে। ডা. নোবেলকুমারবড়–য়া বলেন, মুখেমাক্স ব্যবহারকরার চেয়েনিয়মিতহাতমুখ ধোয়া ও নিজকেপরিষ্কার-পরিচ্ছন্নরাখারমাধ্যমে ব্যক্তিগত পরিচর্যায়রাখতেহবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT