রামুতে চার দিনে করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়েছে ১ হাজার ২০৩ জন

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১০, ২০২১
  • 144 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

খালেদ শহীদ, রামু
রামুতে করোনা ভাইরাসের টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। গত চার দিনে এক হাজার ২০৩ জন করোনা ভাইরাসের টিকা গ্রহণ করেছেন। প্রথম দিনেই মুক্তিযোদ্ধা, চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মী ও পুলিশ-আনসার ব্যাটালিয়ন সহ ৯৮ জন কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণ করেছেন। প্রথম দিনের তুলনায় আজ বুধবার চতুর্থ দিনে সাড়ে ছয় গুণের বেশী মানুষ টিকা গ্রহণ করেছেন। চিকিৎসক-নার্সসহ সম্মুখ সারির পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধা, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিক, রাজনীতিকসহ অন্যান্য শ্রেণি-পেশার মানুষও এ টিকা গ্রহণ করেছেন। প্রতিদিন বাড়ছে নিবন্ধনের সংখ্যা। প্রথম পর্যায়ে রামুতে চার হাজার কোভিড-১৯ টিকা এসেছে বলে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়। বুধবার দুপুরে রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোভিড-১৯ টিকা প্রদান কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন, রামু উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা।
রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া বলেন, প্রথম দিন ৯৮ জন, দ্বিতীয় দিন ১৩৮ জন, তৃতীয় দিন ২৯৮ জন, চতুর্থ দিন ৬৬৯ জন কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণ করেছেন। আজ বুধবার পর্যন্ত রামুতে মোট টিকা গ্রহণ করেছেন এক হাজার ২০৩ জন। রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও রামু সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে কোভিড-১৯ টিকা প্রদান করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে রামুতে ৪ হাজার ডোজ করোনার টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হয়েছে গত রোববার থেকে। টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা আরো বাড়বে জানিয়ে তিনি বলেন, অচিরেই আরও কোভিড-১৯ টিকা রামুতে আসবে, পর্যাপ্ত টিকা মজুদও থাকবে। টিকা নিয়ে কোনো সংকট হবে না।
আজ বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোভিড-১৯ টিকাপ্রদান কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায় টিকাগ্রহণকারীদের দীর্ঘ লাইন। টিকাগ্রহণের জন্য লাইনে দাঁড়িয়েছেন, রামু উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা রনধীর বড়ুয়া, স্বস্ত্রীক রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ওবাইদুল হক, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মনোয়ারা ইসলাম নেভী, রামু প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি খালেদ শহীদ ও নুরুল ইসলাম সেলিম, রামু উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়–য়া, উপজেলা স্বেচ্ছা সেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লীক, রাজারকুল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি সরওয়ার কামাল সোহেল, রামু ইনষ্টিটিউট অব মিউজিকের পরিচালক হিমাদ্রী বড়ুয়া পান্থ, উপজেলা স্কাউট সম্পাদক সুকুমার বড়ুয়া বুলু, ফুটবলার রিটু বড়ুয়া সহ পুলিশ ও বিজিবি সদস্য, শিক্ষক, সাংবাদিক, স্বাস্থ্যকর্মী এবং বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। টিকাগ্রহণকারীদের টিকার কার্ড তালিকাভূক্ত করে সহায়তা দিচ্ছেন স্কাউট সদস্যরা।
রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া, চিকিৎসা কর্তকর্তা ডা. রিপন চৌধুরী, ডা. মানিকুল আলম, ভারপ্রাপ্ত আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আবু নাসের ফায়াজ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক বিপ্লব বড়ুয়া ও ইপিআই মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট মো. আলী আকবর সহ রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা নিরলসভাবে টিকাগ্রহণকারীদের সেবা দিচ্ছেন। টিকা নিতে আসা বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষরাও উৎসব মুখর পরিবেশে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সেবা নিচ্ছেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া বলেন, টিকা নিয়ে মানুষের মধ্যে যে ভীতি ছিলো, তা কাটতে শুরু করেছে। রামুতে প্রথম দিনের তুলনায় চার দিনের মধ্যেই সাড়ে ছয় গুণের বেশী মানুষ কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণ করেছেন। কক্সবাজার জেলায় এখন পর্যন্ত টিকাদানে শীর্ষ রয়েছে রামু উপজেলা। তিনি বলেন, টিকাগ্রহণ নিয়ে ভয়ের কিছু নেই। এটি সম্পূর্ণ নিরাপদ একটি টিকা। সাধারণতঃ টিকা গ্রহণ করলে, সামান্য ব্যথা বা জ¦র হতে পারে। এনিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। রামু উপজেলায় টিকা গ্রহীতাদের কারও শরীরে এখনও পর্যন্ত কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়নি বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন।
ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া বলেন, রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও রামু উপজেলার ২৭টি কমিউনিটি ক্লিনিকে বিনামূল্যে কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণকারীদের নাম রেজিস্ট্রেশন করে দেয়া হচ্ছে। নিবন্ধন করা নিয়ে অস্থিরতার কোনো কারণ নেই। এছাড়াও ব্যক্তি উদ্যোগে অনলাইনের মাধ্যমে সহজে টিকা গ্রহণে নিবন্ধন করা যাচ্ছে।
উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা বুধবার দুপুরে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকাকেন্দ্র পরিদর্শন শেষে হাসপাতালে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, প্রথমদিকে টিকা নিয়ে মানুষের মধ্যে যে ভয়-ভীতি ছিল। তা দিন দিন কেটে যাচ্ছে। টিকাগ্রহণের জন্য হাসপাতালে ভীড় বাড়ছে। সহজেই টিকা নিতে পারছেন। টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনো ঝামেলা নেই। গত মঙ্গলবার আমি নিজেও কোভিড-১৯ টিকা নিয়েছি। তিনি বলেন, সামনের দিনগুলোতে আরও বেশি মানুষ কোভিড-১৯ টিকা নিতে আসবেন এবং উৎসবমুখর পরিবেশে টিকাদান চলবে। মানুষ আনন্দের সঙ্গে টিকা নেবে। ভিড় করার প্রয়োজন নেই। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। সবাইকে নিবন্ধন করে টিকাকেন্দ্রে আসতে হবে। যখন যার সময় আসবে, আপনারা সবাই ঠিক সময়েই টিকা নেবেন। টিকা নিন, সুস্থ থাকুন। কারণ করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে নিজেকে এবং পরিবারের সদস্যদের সুরক্ষিত রাখতে টিকার বিকল্প নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT