মেয়াদোত্তীর্ণ লাইসেন্স দিয়ে চলছে জেলার বেশির ভাগ প্রাইভেট হাসপাতাল ও ডায়গনষ্টিক সেন্টার: দেখার কেউ নেই

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, আগস্ট ১৬, ২০২০
  • 451 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

মাহাবুবুর রহমান.
কক্সবাজার সিভিল সার্জন অফিসের হিসাবে মতে জেলায় ১১৭ টি প্রাইভেট হাসপাতাল,ক্লিনিক এবং ডায়গনষ্টিক সেন্টার আছে কিন্তু তার মধ্যে মাত্র কয়েকটি ছাড়া বেশির ভাগ প্রাইভেট পাসপাতালের লাইসেন্সের মেয়ার নেই। অনেকে আবার ৫ বছর পর্যন্তও নবায়ন নেই তবুও দিব্বি চলছে সে সব হাসপাতাল এবং ডায়গনষ্টিক সেন্টার। আবার এসব প্রাইভেট হাসপাতালে সরকারি যে সব সুযোগ সুবিধা থাকার কথা তার লেশমাত্র নেই। শুধু মাত্র ব্যবসায়িক মানসিকতা নিয়েই চলছে জেলা জুড়ে এসব হাসপাতাল। এতে স্বাস্থ্যসেবার বদলে অতিরিক্ত টাকা খরচ হচ্ছে বলে জানান ভুক্তভোগীরা।
কক্সবাজার সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে জেলায় প্রাইভেট ক্লিনিক,ডায়গনস্টিক সেন্টার আছে ১১৭ টি। তার মধ্যে কক্সবাজার সদরে শুধ মাত্র ফুয়াদ আল খতিব হাসপাতালে ২০১৯-২০২০ সাল পর্যন্ত লাইসেন্স নবায়ন থাকলেও আর কোন হাসপাতালের লাইসেন্স হালসন পর্যন্ত নবায়ন নেই। তালিকা অনুযায়ী ডিজিটাল হাসপাতাল এবং ডায়গনস্টিন সেন্টারের লাইসেন্স নবায়ন আছে ২০১৮-১৯ পর্যন্ত,একই সাথে বায়তুশ শরফ হাসপাতাল এবং ডায়গনষ্টিক সেন্টারের ২০১৬-১৭,জেনারেল হাসপাতাল এবং ডায়গনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স আছে২০১৮-১৯ সাল পর্যন্ত। কক্স ন্যাশনাল হাসপাতাল ২০১৬-১৭,কমিউনিটি চক্ষু হাসপাতাল ২০১৮-১৯,সী-সাইড হাসপাতাল এবং ডায়গনস্টিক সেন্টার ২০১৮-১৯,সেন্ট্রাল হাসপাতাল ও ডায়গনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স নবায়ন আছে ২০১৮-১৯ পর্যন্ত। এছাড়া ঈদগাও মডেল হাসপাতাল ২০১৬-১৭,কক্সবাজার ইনভেষ্টিগেশন সেন্টার ২০১৮-১৯,ডক্টর চেম্বার প্যাথলজি ২০১৮-১৯,লাইফ স্কেন প্যাথলজিক্যাল ল্যাব ২০১৬-১৭,সূর্যের হাসি ক্লিনিক ২০১৬-১৭,শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরটরী ২০১৬-১৭,ফেমার্স ডেন্টাল কেয়ার ২০১৪-১৫,হেলথ কেয়ার মেডিকেল এন্ড প্যাথলজি সেন্টার ২০১৪-১৫,আলফা মেডিকেল সেন্টার ২০১৬-১৭,সিগমা প্যাথলজি সেন্টার ২০১৬-১৭,পপুলার ল্যাব,ঈদগাও ২০১৬-১৭,ঈদগাওহ মেডিকেল সেন্টার ২০১৬-১৭,ঈদগাহ জমজম হাসপাতাল ২০১৬-১৭,ঈদগাহ ডায়গননষ্টিক সেন্টার ২০১৬-১৭,ডায়াবেটিম সেন্টার ঈদগাও ২০১৬-১৭,কক্স ডেন্টাল সার্জারী হসপিটাল ২০১৩-১৪, সেন্ট্রাল হসপিটাল চকরিয়া ২০১৬-১৭,হারবাং ডায়গনষ্টিক সেন্টার ২১০৬-১৭,ল্যাব হাউজ চকরিয়া ২০১৬-১৭, দি সিটি কেয়ার ডায়গনস্টিক চকরিয়া ২০১৬-১৭,হামজা প্যাথলজি চকরিয়া ২০১৫-১৬,মডেল ল্যাব চকরিয়া ২০১৭-১৮,ডিজিটাল সুপার ল্যাব চকরিয়া ২০১৫-১৬,সাভ ফিজিউথেরাপী ২০১৬-১৭,কবির ডেন্টাল কেয়ার ২০১৮-১৯,মর্ডান ডেন্টাল কিউর ২০১৮-১৯,ডিজিটাল ডেন্টাল সার্জারী ২০১৬-১৭, মা আয়েশা ডেন্টাল চিকিৎসালয় চকরিয়া ২০১৬-১৭,চকরিয়া ডিজিটাল ডায়গনষ্টিক সেন্টার ও হাসপাতাল ২০১৬-১৭,হিল সাইড প্যাথলজি ২০১৬-১৭,বৈশাখী ল্যাব ২০১৬-১৭,পপুলার ল্যাব ২০১৬-১৭,কেয় ডেন্টাল কিউর ২০১৫-১৬,চকরিয়া ফিজিউথেরাপী ২০১৬-১৭,একুশে ডায়গনষ্টিক হাসপাতাল ২০১৬-১৭,জমজম হাসপাতাল চিরিংঙ্গা ও ডায়গনষ্টিক সেন্টার ২০১৯-২০,এশিয়ান হাসপাতাল ২০১৬-১৭,সূর্যের হাসি ক্লিনিক চকরিয়া ২০১৬-১৭,চকরিয়া ইউনিক হাসপাতাল ২০১৮-১৯,আছিয়া মেমোরিয়াল হাসপাতাল ২০১৮-১৯,সিটি ডেন্টাল কেয়ার ২০১৬-১৭,কেয়া ডিজিটাল ফিজিউথেরাপী ২০১৬-১৭,শেফা প্যাথলজি ২০১৬-১৭,চকরিয়া ডিজিটাল সেন্টার ২০১৯-২০,লাইফ ডেন্টাল কেয়ার ২০১৬-১৭,ফ্যামেলি ডেন্টাল কেয়ার ২০১৬-১৭ এর লাইসেন্স মেয়াদোত্তীর্ন হয়েছে। এছাড়া পেকুয়া উপজেলার সেবা প্যাথলজি ২০১৬-১৭,চৌমুহনী প্যাথলজি পেকুয়া ২০১৬-১৭,প্যান ইসলামিক হাসপাতাল ও ডায়গনস্টিক সেন্টার ২০১৬-১৭,পেকুয়া উপজেলা হাসপাতালের আরএমওর নিজস্ব প্রতিষ্টান নূর হসপিটাল ও ডায়গনষ্টিক সেন্টার ২০১৬-১৭,পেকুয়া মেডিকেল সেন্টার ২০১৬-১৭ এর লাইসেন্স আছে সে হিসাবে প্রত্যেকটি প্রতিষ্টানের লাইসেন্স মেয়াদোত্তীর্ন হয়েছে। রামুর সী-সাইড প্যাথলজি ২০১৬-১৭,হেলথ রামু ২০১৬-১৭,সূর্যের হাসি ক্লিনিক রামু ২০১৬-১৭,হোপ হসপিটাল দক্ষিন মিঠাছড়ি রামু ২০১৬-১৭,গর্জনিয়া সেবা ডায়গনষ্টিক সেন্টার ২০১৬-১৭। সে হিসাবে রামুর প্রত্যেক হাসপাতাল ও ডায়গনষ্টিক সেন্টারের লাইসেন্স মেয়াদোত্তীর্ন,উখিয়া উপজেলার পালং প্যাথলজি সেন্টার ২০১৬-১৭,সেবা প্যাথলজি ২০১৬-১৭,লাইফ কেয়ার ২০১৬-১৭,পপুলার প্যাথলজি ২০১৬-১৭,সেঞ্চুরী ল্যাব ২০১৬-১৭,অরিজিন হসপিটাল ২০১৬-১৭,টেকনাফ উপজেলার ল্যাব এইড মেডিকেল ২০১৬-১৭,হ্নীলা ডায়গনষ্টিক সেন্টার ২০১৬-১৭,নাফ প্যাথলজি সেন্টার ২০১৬-১৭,নাফ ভিউ মেডিকেল সেন্টার ২০১৬-১৭,সূর্যের হাসি ক্লিনিক হ্নীলা ২০১৬-১৭,কেয়ার ল্যাব টেকনাফ ২০১৬-১৭,টেকনাফ প্যাথলজি সেন্টার ২০১৬-১৭,ল্যাব মেডিকো সীমান্ত কমপ্লেক্স ২০১১-১২,মহেশখালী উপজেলার মহেশখালী প্যাথলজি সেন্টার ২০১৬-১৭,নিউরণ হেল্থ এন্ড ডায়গনষ্টিক সেন্টার ২০১৬-১৭,মহেশখালী ডেন্টাল পয়েন্ট ২০১৬-১৭,আল হামরা মেডিকেল সার্ভিস ২০১৫-১৬,সূচনা দত্ত চিকিৎসা কেন্দ্র ২০১৬-১৭,বিজিএস হেল্থ এন্ড প্যাথলজি ২০১৬-১৭ পর্যন্ত লাইসেন্স নবায়ন আছে। সে হিসাবে কক্সবাজারে ১১৭ টি প্রাইভেট হাসপাতাল এবং ডায়গনষ্টিক সেন্টারের লাইসেন্স পর্যালোচনায় দেখা গেছে মাত্র কয়েকটি বাদে বাকি সবার লাইসেন্স মেয়াদোত্তীর্ন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন স্বাস্থ্য প্রশাসন সংশ্লিষ্টরা জানান,এখানে সব অনিয়ম নিয়মে পরিনত হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী লাইসেন্স ছাড়া একদিন হাসপাতাল চালাতে পারেনা। আবার লাইসেন্স নবায়ন করতে অনেক সরকারি নির্দেশনা আছে যে গুলো বেশির হাসপাতালে নেই মূলত টাকার জোরে এখানে সব কিছু হয়। আবার স্বাস্থ্যখাত চালায় এমন নেতারা এগুলো নিয়ন্ত্রন করে স্বাস্থ্য প্রশাসন চাইলেও কিছু করতে পারেনা। মাঝে মধ্যে নামে মাত্র কিছু অভিযান যান হয়। তাদের দাবী সর্ত পূরন না করলেও এসব হাসপাতালে প্রতি নিয়ত টাকা গুনতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। এ ব্যপারে কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডাঃ মাহাবুবুর রহমান বলেন,অনেকে আবেদন করেছে তবে সেখানে ঢাকা থেকে পরিদর্শন করতে আসা সহ অনেক নিয়ম আছে সেটার কারনে হয়তো কিছুটা সমস্যা হচ্ছে তবে অনেকের দেখা যাচ্ছে ৩ বা ৫ বছরও নবায়ন নাই এটা কোন ভাবে গ্রহন যোগ্য নয়। খুব দ্রæত সে সব প্রতিষ্টানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT