মুক্তির নতুন সভাপতি এড.সুজিত চৌধুরী সম্পাদক বাবলা পাল

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, আগস্ট ৩১, ২০১৯
  • 75 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

কক্সঃ৭১ রিপোর্ট
বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা মুক্তি কক্সবাজারের ২৪ তমসাধারণ সভা ৩০ আগষ্ট সংস্থার গোলদিঘিরপাড়স্থ প্রধানকার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষেসকাল ১০টায় শুরুহয়।জাতীয়সংগীতেরমাধ্যমে শুরুহওয়াসাধারণসভায়সভাপতিত্ব করেনসংস্থার সহ-সভাপতি অধ্যাপক জেবুন্নেছা এবংসঞ্চালনায়ছিলেন প্রধান নির্বাহী বিমল চন্দ্র দে সরকার।সভারশুরুতে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখমুজিবর রহমান সহ তাঁর পরিবারের প্রয়াতসকল সদস্যের আত্মারশান্তিকামনায় উপস্থিত সকলে ১ মিনিটনীরবতাপালনকরেন।
মুক্তি কক্বাজারেরপ্রতিষ্ঠাকালীনবিষয়াবলীনিয়ে বক্তব্য রাখেনসংস্থারপ্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমানউপদেষ্টাঅধ্যাপক সোমেশ্বরচক্রবর্তী,প্রতিষ্ঠাতাওবর্তমানউপদেষ্টাএডভোকেটসুজিতচৌধুরীএবংউপদেষ্টা ওবিশিষ্টসাংবাদিকশ্রীসন্তোষশর্মা।সংস্থার বার্ষিকপ্রতিবেদন পেশকরেনসাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রনজিত দাশ।প্রধাননির্বাহীবিমল চন্দ্র দে সরকারসংস্থার ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরেরনিরীক্ষাপ্রতিবেদন উপস্থাপনকরেন।
বক্তব্য রাখেন, সংস্থার সভাপতি এড. শিবুলাল দেবদাস, সহ-সভাপতিঅধ্যাপক জেবুন্নেছা,সাধারণসম্পাদকএডভোকেটরনজিত দাশ, সহ-সাধারণসম্পাদকবাবলাপাল, নির্বাহীসদস্য রতন দাশ, মন্দিরা পাল, মাসুদা মোর্শেদা আইভি, সাধারণসদস্য স্বপনকান্তিপাল, সোহেল আহমদ বাহাদুর, অসিতকুমারপাল,হেলেনাজতাহেরা, অধ্যাপকঅজিত কুমার দাশ, রেহেনাইয়াসমিনএবং সেলিনা আক্তার।
প্রতিষ্ঠাতাঅধ্যাপক সোমেশ্বরচক্রবর্তীবলেন, আজমন খুব ভারাক্রান্ত। মুক্তি কক্বাজারএকটি স্থানীয়সংগঠন। ১৯৯১ সালেরঘূর্ণিঝড়ের পর থেকেএরকার্যক্রমশুরুহয়। এই সংস্থা আজ ধীরেধীরে অনেকটা বেড়ে উঠেছে।বাংলাদেশের মানুষের অপরিসীম দেশপ্রেম আছে। মুক্তি কক্বাজার প্রমাণ করেছে, সামাজিক নেতৃত্ব দিয়ে অনেক দূর এগিয়ে যাওয়া যায়।আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য”ঞড় নব মড়ড়ফ ঃড় ফড় মড়ড়ফ”. এই লক্ষ্যে আমরা অবিচল, তাই জয় আমাদের সুনিশ্চিত।
প্রতিষ্ঠাতাএডভোকেটসুজিত চৌধুরীবলেন, আকাশেকালো মেঘ দেখা যায় এবং ভেসে বেড়ায়। তা আবার সরেওযায়। প্রতিষ্ঠাকালীনসময় থেকে মুক্তি এতদূরএসেছে। আমাদের আরোবহুদূর এগিয়ে যেতেহবে।কক্সবাজারেরমানুষের স্বার্থে সবাই কে নিয়েআমাদের কাজকরতেহবে। আমাদের অতীতের মত সফলতা আসবেই।
উপদেষ্টাএবংবিশিষ্টসাংবাদিকসন্তোষশর্মাবলেন, আমরা সবাই সচেতন মানুষ। কক্সবাজার জেলার একটিপ্রতিষ্ঠান মুক্তি কক্সবাজার। এই প্রতিষ্ঠানে কক্সবাজারের স্থানীয় লোকজনই বেশি কাজ করছে। এগুলো দেখলে আমার ভাললাগে। কক্সবাজার জেলার স্বার্থে আমাদের মুক্তি কক্সবাজারকেটিকিয়েরাখতেহবে।আমরাযাকরি,যাভাবিতাবিবেকদিয়েচিন্তাকরতেহবে।অন্যান্যেরমধ্যে বক্তব্য রাখেনপল্লী কর্ম সহায়কফাউন্ডেশন(পিকেএসএফ) এর ডেপুটি জেনারেলম্যানেজারদিলীপপাল,যমুনা চৌধুরী,সংস্কৃতজনবিপুল সেন,বিশিষ্টসাংবাদিক ও সংগঠক দীপকশর্মাদিপু, সুশাসনেরজন্য নাগরিক (সুজন) এরকক্সবাজার জেলাসাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মাহাবুবুর রহমান,সাংবাদিক শফিউলআলম, সংস্থার চলমানবিভিন্নপ্রকল্পেরসমন্বয়কারী ওকর্মকর্তাবৃন্দ।
অতঃপর সভাপতি মহোদয় বর্তমান কার্যকরী পরিষদ বিলুপ্ত ঘোষনাকরেনএবংনতুনকার্যকরীপরিষদ নির্বাচনেরঅনুরোধজানান। উপস্থিত সাধারণপরিষদ সদস্যবৃন্দ ৩সদস্য বিশিষ্টসাবজেক্ট কমিটিগঠনকরেতাদেরকেএকটিনতুনকার্যকরীপরিষদ প্রস্তাবকরারজন্য দায়িত্ব প্রদানকরেন। সাবজেক্ট কমিটিরসদস্যরাহলেন- ১। অধ্যাপক সোমেশ্বর চক্রবর্তী ২। এডভোকেট সুজিত চৌধুরী ৩। শ্রী সন্তোষশর্মা । সাবজেক্ট কমিটি পৃথকভাবে বসে ১০ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কার্যকরী পরিষদের তালিকা তৈরীকরেসভায় উপস্থাপনকরেন। সর্বসম্মত ভাবে আগামী ১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ হতে ৩১ আগস্ট ২০২০পর্যন্ত মেয়াদের জন্য নিম্নবর্ণিত ১০ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী পরিষদ গঠিত হয়।নবনির্বাচিত সভাপতি হলেন এডভোকেট সুজিত চৌধুরী,সহ-সভাপতি অধ্যাপক জেবুন্নেছা,সাধারণ সম্পাদক বাবলা পাল, সহ-সাধারণ সম্পাদক রেহেনা ইয়াসমিন,সদস্য বিমল কান্তি চৌধুরী, মাসুদা মোর্শদা আইভি, রতন দাশ, মন্দিরা পাল, ডাঃমিজবাহউদ্দিনআহমদ,অধ্যাপকঅজিতকুমার দাশ।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT