শিরোনাম :
কক্সবাজারে বিমান উড্ডয়নের সময় ধাক্কাতে ২ টি গরুর মৃত্যু : বড় দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা চকরিয়ায় ব্যালট পেপার বিনষ্টের অভিযোগে মামলা: প্রিজাইডিং অফিসার কারাগারে খুরুশকুল এলাকায় অভিযানে ১ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-আটক ১ কস্তুরাঘাট সংলগ্ন বাকঁখালী নদী এখন প্রভাবশালীর ব্যাক্তিগত জমি বদরখালীতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় নৌকা প্রার্থীর ভাগ্নেকে পিটিয়ে হত্যা ঈদগাঁওতে শীতমৌসুমে গরম কাপড় কিনতে ক্রেতাদের ভীড় চকরিয়ায় ১০ ইউপিতে আ‘লীগ ৫ স্বতন্ত্র ৫ মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যাচেষ্টা, মহেশখালীর মেয়রসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা পিএমখালীতে ইয়াবা সহ আটক হোসেনের সিন্ডিকেট এখনো অধরা নাফ নদ থেকে ১ কেজি আইসসহ পাচারকারী আটক

বিদেশে যেতে চায় মুহিবুল্লাহ‘র পরিবার

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, অক্টোবর ১৭, ২০২১
  • 78 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

কক্স৭১

নিরাপত্তাহীনতার কারণে মুহিবুল্লাহর পরিবার, তাঁর ছোট ভাই হাবিব উল্লাহর পরিবার ও ভাগনে রশিদ উল্লাহসহ ১২ জন বাংলাদেশ ছাড়তে চেয়েছেন। ইতিমধ্যে তাঁরা তিনটি দেশের নাম উল্লেখ করে দুই ধাপে দুটি বিদেশি সংস্থা ও একটি দেশের প্রধান বরাবর আবেদন জমা দিয়েছেন।
মুহিবুল্লাহর ভাগনে এবং আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ)-এর মুখপাত্র রশিদ উল্লাহ আজকের পত্রিকাকে আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডের ছয় দিন পর ৫ অক্টোবর শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্রে আবেদন করেন তাঁরা। পরে স্বজনদের যুক্ত করে ১৩ অক্টোবর আবার দ্বিতীয় আবেদন করা হয়।
আবেদনপত্রে বলা হয়, ক্যাম্পে থাকতে মুহিবুল্লাহর স্ত্রী, সন্তান ও স্বজনেরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। মুহিবুল্লাহর মতো যেকোনো সময় তাঁদের সঙ্গে একই ঘটনা ঘটতে পারে। তাই আপাতত তৃতীয় বিশ্বের যেকোনো মুসলিম দেশে যেতে পারলে নিরাপদ বোধ করবেন। তবে তাঁদের প্রধান পছন্দ যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া বা কানাডা।
গত ২৯ সেপ্টেম্বর মুহিবুল্লাহ উখিয়ার কুতুপালংয়ে ক্যাম্পে নিজ কার্যালয়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, ইউরোপের একটি দেশের পক্ষ থেকে মুহিবুল্লাহর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। আপত্তি না থাকলে তারা নিয়ে যেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।গতকাল শনিবার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশন (আরআরআরসি) যোগাযোগ করা হলে অতিরিক্ত কমিশনার শামসুদ্দোজা কোনো মন্তব্য করতে দিতে রাজি হননি।
১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার নাঈমুল হক বলেন, হুমকির বিষয়টি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দেখছেন। তবে প্রাথমিকভাবে মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ কয়েকজনকে ক্যাম্পের বাইরে একটি সেন্টারে সরিয়ে রাখা হয়েছে। পুলিশ সেখানে তাঁদের নিরাপত্তা দিচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT