বালুখালীর দুই ইয়াবা ডন গ্রেফতার

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০
  • 411 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
উখিয়ার বালুখালীতে অভিযান চালিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ইয়াবাসহ প্যানেল চেয়ারম্যান নুরুল আবছার চৌধুরী ও কমিনিউটি পুলিশিং এর উখিয়ার কোষাধ্যক্ষ নুরুল আলম চৌধুরীকে গ্রেফতার করেছে। সোমবার ভোর রাতে উখিয়ার বালুখালী পূর্বপাড়ায় ধৃতদের বাড়ীতে এ অভিযান চালানো হয়। তাদের কাছ থেকে ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
সূত্র জানায়, বালুখালী এলাকার মো: ইসলাম মিয়ার পুত্র কমিনিউটি পুলিশিং কোষাধক্ষ্য নুরুল আলম চৌধুরী র‌্যাব ও পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে ধমক দিয়ে নীরিহ লোকজনের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করত। নিজেকে কৃষকলীগের নেতা বলে দাবী করে ইয়াবা কারবারসহ বিভিন্ন প্রতারণা চালিয়ে আসছিল। তার সহোদর নুরুল আমিন ইয়াবার চালানসহ আটক হয়ে কক্সবাজার কারাগারে বন্দি রয়েছে। নুরুল আলম চৌধুরী র‌্যাব ও পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে স্থানীয় বালুখালী এলাকার মৃত আবুল কাশেমের পুত্র হাজী আবদুল গফুরের কাছ থেকে মামলার ভয় দেখিয়ে নগদ এক লক্ষ টাকা চাঁদা আদায় করেছে। হাজী আবদুল গফুর এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন দফতরে টাকা উদ্ধার ও চাঁদাবাজ নুরুল আলমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অভিযোগ করেছে। উল্লেখ্য তার পিতা ইসলাম মিয়াকে চোরাচালান মামলায় কারাভোগ করতে হয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন ডিটেনশনে কক্সবাজার কারাগারে ছিলেন। নুরুল আলম দীর্ঘদিন দুবাই অবস্থান করে ২০১৯সালে দেশে ফিরেন। অথচ জেলা কৃষকলীগের সম্মেলন হয়েছে ২০০৯সালে। অথচ জেলা কমিটিতে তার নাম না থাকা সত্বেও তিনি নিজেকে জেলা কৃষকলীগের স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক দাবী করে বিভিন্ন স্থানে ব্যানার টাঙ্গিয়েছে। জেলা কৃষকলীগ সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরী ওই নুরুল আলমকে চিনেননা এবং কৃষকলীগের কেউ নন বলে জানিয়েছেন।
এছাড়া বিদেশ নেয়ার কথা বলে এক লাখ ষাট হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে পার্শ্ববর্তী বাগা আলম বাগার পুত্র শাহ্ জাহানের কাছ থেকে। সৌদিআরব নেয়ার কথা বলে পার্শ্ববর্তী এলাকার আরেক যুবক হাকিম আলীর ছেলে মো: সেলিমের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে ৮০ হাজার টাকা। দুবাই নেয়ার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে মৃত জাফর আলমের ছেলে আইয়ুব ইসলামের কাছ থেকে। ঘর তৈরী করার সময় বালুখালির ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম পাড়ার মৃত মকবুল আলমের ছেলে দিদারুল ইসলামের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছে ইউএনওকে দেয়ার কথা বলে।
ভুক্তভোগীদের অভিযোগ একসময় চকরিয়া কলেজে শিবিরের সাথী হিসেবে দায়িত্বে থাকা এই নুরুল আলম এলাকায় কৃষকলীগের দায়িত্বে কিভাবে রয়েছে? মামলা খেয়ে দীর্ঘদিন প্রবাসী জীবন অতিবাহিত শেষে দেশে আসা এই ব্যাক্তি আদম ব্যাপারীর সাথেও জড়িত রয়েছে। তিনি নিজেই এলাকায় মাদক ব্যবসা আর জুয়ার সাথে জড়িত।
শুধু নুরুল আলম নয় তার পরিবারের অনেকে অপরাধ জগতের সাথে জড়িত। তার আপন ছোট ভাই নুরুল আমিন গত সাত মাস আগে ইয়াবা সহ পুলিশের হাতে আটক হয়ে এখনো জেল হাজতে রয়েছে। তার চাচাত ভাই নুরুল আবছার ও রুবেল এক বছর আগে ইয়াবা সহ ঢাকায় গ্রেফতার হয়। এদিকে পালংখালী ইনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান মেম্বার নুরুল আবছার চৌধুরীকেও একই সময় তার বাড়ী থেকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। প্রশাসনের লোক জানতে পেরেও তারা দু’জনই দরজা খুলে না দিয়ে ঘরের ভেতর ইয়াবার চালান লুকাচ্ছিল বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। #

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT