শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চোরাই পণ্যের ব্যবসা জমজমাট কক্সবাজারের দুই পৌরসভা ও ১৪ ইউপিতে ভোট ২০ সেপ্টেম্বর রামু উপজেলা পরিষদের সৌন্দর্য্য নষ্ট করে দোকান বরাদ্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ঈদগাঁও বটতলী-ইসলামপুর বাজার সড়কের বেহাল দশা আইসক্রিম বিক্রেতা থেকে কোটিপতি রোহিঙ্গা জালাল : নেপথ্যে ইয়াবা ব্যবসা পৌর কাউন্সিলার জামশেদের স্ত্রী‘র ইন্তেকাল : সকাল ১০ টায় জানাযা উখিয়ায় বিদ্যুৎ পৃষ্টে একজনের মৃত্যু কক্সবাজারে বেড়াতে এসে অতিরিক্ত মদপানে চট্টগ্রাম ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু টেকনাফে নৌকা বিদ্রোহীদের জন্য কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে; সাবরাং পথসভায় মেয়র মুজিব ৮ হাজার পিস ইয়াবা, যৌন উত্তেজক সিরাপ নগদ টাকা সহ আটক ১

বাংলাবাজারে প্রকাশ্য উলঙ্গ হয়ে নারীদের শ্লীলতাহানী করে জমি দখলের চেস্টা

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ডিসেম্বর ২৩, ২০২০
  • 437 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

কক্স৭১
কক্সবাজার পিএমখালী ইউনিয়নে বাংলাবাজার এলাকায় উলঙ্গ হয়ে নারীদের শ্লীলতাহানী করে জোর পূর্বক জমি দখল করতে ব্যার্থ হয়ে নিজের পরিত্যাক্ত ঘরে আগুন দিয়ে উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে এক অষহায় পরিবারকে হয়রানী করা হচ্ছে। প্রত্যক্ষদর্শী এবং এলাকার মানুষ জনের সাথে কথা বলে জানা গেছে বাংলাবাজার এলাকার গোলাম শরীফের পুত্র ইউনুছ প্রকাশ ইউনুছ মিস্ত্রি এবং তার ভাই ছৈয়দ মিস্ত্রির প্রতিবেশী আবুল হোসেনের বাড়ি তারা খুব শান্ত প্রকৃতির মানুষ। আবুল হোসেনে স্ত্রী ছেনুয়ারা বেগম জানান,গত অক্টোবর মাসের ২০ তারিখ আমাদের নিজস্ব বাড়ির জমিতে একটি গোয়ালঘর নির্মাণ করতে চাইলে সেখানে বাধা দেয় ইউনুচ মিস্ত্রি সে নিজে হাতুড়ি দিয়ে আমার বাড়ির দেয়াল ভেঙ্গে দেয় এ সময় আমার মেয়েরা কারন জানতে চাইলে প্রকাশ্য উলঙ্গ হয়ে শ্লীলতাহানী করে বিষয়টি আমরা স্থানীয় মেম্বার নুরুল হুদা,সাবেক মেম্বার সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিদের বিচার দিলে তারা বলে জমিটি পরিমান করার জন্য সে সময় ইউনুচ মিস্ত্রি রাজি না হয়ে আমাদের নির্মানাধীন গোয়ালঘরে অবৈধ ভাবে বিদ্যূৎ লাইন ঢুকিয়ে দেয়। এতে আমাদের প্রায় দেড় লাখ টাকার গরুটিতে বিদ্যূৎ সট খেয়ে পুড়ে যায় পরে বাধ্যহয়ে সেই গরু বিক্রি করতে হয়েছে। পরে সেই বিদ্যূৎ এর তারে সট খেয়ে আমার ছেলে আবদুল করিম পুড়ে যায় পরে তাকে চিকিৎসাদিয়ে কোন মতে সুস্থকরি। এ ঘটনায় আমরা বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান মাস্টার আবদুর রহিমকে জানালে তিনি সরজমিনে গিয়ে সেই অবৈধ বিদ্যূতের তার সরাতে বলে এবং বিচারের জন্য ইউনুচ মিস্ত্রিকে ডাকলে তারা বিচারে আসেনি এবং সরাসরি বলে দিয়েছে আমি ছেনুয়ারাদের জমি দখল করবো তাই কোন বিচার মানবো না। পরে চেয়ারম্যান আমাদের থানার আশ্রয় নিতে বললে আমরা সদর থানায় অভিযোগ করলে ২৪ অক্টোবর সদর থানার এসআই আলমগীর গিয়ে আমাদের গোয়ালঘর থেকে বিদ্যূতের অবৈধ তার উদ্ধার করে এবং থানায় বিচারেরজন্য ডাকলে প্রথম বার না এসে দ্বিতীয় বার গেলে সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়ে উভয় পক্ষ সার্ভেয়ার দিয়ে জমির পরিমাপ করার সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উভয় পক্ষ সার্ভেয়ার দিয়ে জমি মাপার পরে আমরা ইউনুচ মিস্ত্রিদের কাছ থেকে ২ ফুট জমি পাব। বিচারকরা ২ ফুট জমি উদ্ধার করে দিতে চাইলেও আমার বলেছি আমাদের সেই জমি দরকার নাই আমরা শান্তিতে থাকতে চাই। তাতেও ইউনুচ,ছৈয়দ গং আমাদের শান্তিতে থাকতে দিচ্ছেনা বরং ২৩ নভেম্বর গভীর রাতে নিজেদের একটি পরিত্যাক্ত ঘরে নিজেরা আগুন ধরিয়ে দিয়ে সেই ঘর পুড়া মামলায় আমার ২ ছেলে মাহমুদুল করিম ও আবদুল করিমকে আসামী করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেছে। অথচ যখন বাড়িতে আগুল লেগেছে তখন এলাকার মানুষ আগুন নেভাতে আসলে কাউকে পাশে আসতে দেয়নি ইউনুচ মিস্ত্রি এবং তার ছেলেরা যা এলাকার শত শত মানুষ দেখেছে। অসহায় ছেনুয়ারা বেগম দাবী করেন ইউনুচ মিস্ত্রি তার ভাই ছৈয়দ এবং তার ছেলেরা এখনো প্রতি নিয়ত আমাদের মারধর এবং গালিগালাজ করে এবং প্রকাশ্য উলঙ্গ হয়ে আমার মেয়েদের শ্লীলতাহানী করে আমি এলাকার মানুষ এবং প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ট বিচারদাবী করছি।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT