শিরোনাম :
মাতারবাড়ি প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনার জম্মদিন উপলক্ষ্যে ঈদগাঁওতে ১ হাজার ৫শ জনের মাঝে টিকা আইসক্রিম বিক্রেতা থেকে কোটিপতি রোহিঙ্গা জালাল : নেপথ্যে ইয়াবা ব্যবসা সিনহা হত্যা মামলার চতুর্থ দফা সাক্ষ্যগ্রহন শুরু উখিয়ার রোহিঙ্গা ছৈয়দ নুরের এনআইডি বাতিল করতে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কলাতলীতে হোটেল দখলে নিতে তৎপর প্রতারক চক্র অবাধ তথ্য প্রবাহ দূর্নীতি প্রতিরোধে সহায়ক ভুমিকা রাখতে পারে : সুজনের আলোচনা সভায় বক্তারা ফাঁদে ফেলে ব্ল্যাকমেইল করতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নারী শিক্ষক ২০ হাজার ইয়াবা সহ আটক ১ জেলার বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রাসায় কর্মরত রোহিঙ্গাদের সরকারি সুযোগ সুবিধা বাতিলের দাবীতে আবেদন

বদরখালী-মহেশখালী চ্যানেল থেকে অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলন

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
  • 145 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজারের চকরিয়ায় বদরখালী-বদরখালী নৌ চ্যানেলের বিভিন্ন স্থান থেকে স্থানীয় প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের নাকের ডগায় হরদম চলছে বালি উত্তোলন। যার ফলে নদী গর্ভে হারিয়ে যেতে বসেছে বেশ কয়েকটি বসতি। অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলনে মানছে কোন নিয়মনীতি। ইচ্ছা মত বালি উত্তোলন করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। এতে সরকার পাচ্ছেনা এক কানাকড়ি রাজস্ব।
জানাগেছে,চকরিয়া উপজেলার বদরখালী পুলিশ ফাঁড়ীর উত্তর পাশে সড়কের পশ্চিম নতুনঘোনা এলাকায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অবৈধভাবে বালি মহাল তৈরি করে তা বছর জুড়ে বিক্রি করে লাখ লাখ টাকার রমরমা বানিজ্য চলছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় সচেতন মহল জানান-উপজেলা বদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ভূট্টো সিকদার ও কালু ড্রাইভারের নেতৃত্বে বালিদস্যুরা সাগরের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে বালি উত্তোলন করে বিক্রি করে থাকলেও উপজেলা প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে।
আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী বালু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারণে কোনোভাবেই সরব হতে পারছে পানি উন্নয়ন বোর্ড, উপজেলা মৎস্য বিভাগ ও উপজেলা নদী রক্ষা কমিটি ও পরিবেশ অধিদপ্তর। এসব সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে না পারায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে দিন দিন। প্রতিদিন শত শত ঘনফুট বালি উত্তোলন করছে ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতাকর্মীরা। এ ভাবে বালি উত্তোলনের কারণে গ্রামীণ জনপথ, গুরুত্বপূর্ণ বেঁড়িবাঁধ, মহেশখালী-বদরখালী ব্রীজ,জনবসতীসহ হাজার কোটি টাকার সম্পদ মারাত্মক হুমকির মূখে পড়েছে।
এ ব্যাপারে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, পরিবেশ অধিদপ্তর, থানা, ফাঁড়ি পুলিশ ও পানি উন্নয়ন বোর্ড কক্সবাজার (পাউবো) বিভাগকে স্ব-স্ব এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত জনগন বহুবার মৌখিক ভাবে জানানোর পরও বালি উত্তোলন এখনো বন্ধ হয়নি।
অভিযোগ উঠেছে স্থানিয় গুটি কয়েক সংবাদকর্মীকে ম্যানেজ করায় এসব অবৈধ বালি মহলের বিরুদ্ধে তেমন সংবাদ প্রচার হয়নি। বালি উত্তোলনের কারণে সরকার রাজস্ব বঞ্চিত হলেও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা- কর্মচারীরা অবৈধ বালি উত্তোলনকারীদের কাছ থেকে মোটা অংকের উৎকোচ গ্রহণ করে ফ্রি স্টাইলে বালি উত্তোলনে সহায়তা করে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন।
পানি উন্নয়ন বোর্ড এর ¯øুইসগেট এর জায়গা দখল করে ও পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বালি উত্তোলন ও বালি মহাল বন্ধ করতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপজেলা প্রশাসনকে তাগাদা দিয়েও প্রতিকার পাচ্ছেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT