পিএমখালীতে সরকারি নক্সা পরিবর্তন করে রাস্তার নামে কোটি টাকার পুকুর দখলের পায়তারা

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, মে ১৯, ২০২০
  • 69 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

কক্স৭১
কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালী ইউনিয়নের তোতকখালী এলাকায় উন্নয়নের নামে পরিকল্পিত ভাবে ব্যাক্তি মালিকানাধীন জমির উপর রাস্তা নির্মাণ করে কোটি টাকার পুকুর এবং পুকুর পাড় দখলের পায়তারা করছে বলে জানা গেছে।
কক্সবাজার স্থানীয় সরকার বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবরে তোতকখালী ভোক্তভোগী জমির মালিক মোঃ জাহেদুল হক এর লিখিত অভিযোগ এবং সদর থানায় দেওয়া অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা গেছে তোতকখালী মৌজার বি.এস ১১ নং খতিয়ানের বি.এস ২০০ ও ২০১ নং দাগের জমির প্রকৃত মালিক প্রফেসর জামালুল আকবর চৌধুরী,এডভোকেট আনিসুল হক চৌধুরী এবং বোন ডাঃ জুবায়দা খানম চৌধুরী রেজিস্ট্রিযুক্ত কবলা দলীল মূলে অন্যান্য জমির সাথে পুকুর এবং পুকুর পাড় দীর্ঘ দিন ধরে ভোগ দখলে আছে। ভোক্তভূগী জানান আমরা খবর নিয়ে জেনেছি উপজেলা প্রকৌশল অফিস হতে ই টেন্ডার নোটিশ-২০/২০১৯-২০২০ তাঃ ১২/০১/২০২০ ইং টেন্ডার আইড নং ৪০৯১৮৯ মতে পিএমখালী ইউনিয়নের তোতকখালী এলাকার বউ বাজার হইতে ছ-ভাইয়ের পাড়া জামে মসজিদ বায়া সিকদার পাড়া পাকা সড়ক উন্নয়নের টেন্ডার আহবান করিলে সে মতে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার কার্যাদেশ পায়। কিন্তু কার্যাদেশ প্রাপ্ত ঠিকাদার স্থানীয় কতিপয় ভুমিদুস্য এবং সন্ত্রাসী প্রকৃতির মানুষের সাথে যোগসাজোশে সরকারি নক্সা পরিবর্তন করে আমাদের জমির উপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করার পায়তারা করে আসছিল। পরে হঠাৎ করে দেখা যাচ্ছে উক্ত জমিতে কোন ধরনের পূর্ব নোটিশ বা সরকারি কোন ক্ষতিপূরন অথবা কোন কথাবার্তা ছাড়াই রাস্তার কাজ শুরু করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগের পক্ষ থেকে ঠিকাদার। মূলত সরকারি নক্সা পরিবর্তন করে জমি দখল করাই হচ্ছে ভুমিদস্যুদের মূল উদ্দেশ্য। এছাড়া উক্ত জমি নিয়ে কক্সবাজার জজ আদালতে অপর-১২১৬/২০১৪ ইং একটি মামলাও চলমান আছে। এ ব্যপারে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর জামালুল আকবর চৌধুরীবলেন,আমাদের পুকুরের দক্ষিণ পাশে বৃটিশ আমল থেকে ২০ ফুট রাস্তা আছে,আমাদের স্থাণীয় মেম্বার আগে বলেছিল সেই রাস্তা পাকা হবে কিন্তু হঠাৎ করে দেখি আমাদের নিজস্ব জমিতেই জোর করে রাস্তা করছে। মূলত মেম্বারের শশুর বাড়িতে যাওয়ার জন্য সহজ রাস্তা এটি তাই জোর করে রাস্তার নামে পুকুর দখল করছে। তাই বিষয়েটি নিয়ে উপজেলা প্রকৌশল অফিসে অভিযোগ করলে ১৮ মে সেখান থেকে তদন্ত করতে আসলে উপজেলা প্রকৌশলীদের সামনেই স্থাণীয় মেম্বার তাজ মহলের নেতৃত্বে আরো বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী ও ভুমিদস্যু আমাদের উপর হামলা করে যার প্রেক্ষিতে সদর থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।এ ব্যপারে পিএমখালী ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার আবদুর রহিম জানান,সরকারি নক্সা পরিবর্তন করে ঠিকাদারের কাজ করার কোন সুযোগ নেই বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি। তবুও আমি খোঁজ নিচ্ছি। এব্যপারে সদর উপজেলা প্রকৌশলী মনিরুজ্জামান বলেন,সরকারি নক্সা পরিবর্তন করে কাজ করার কোন সুযোগ নেই মূলত সেখানে জমি নিয়ে কিছু বিরোধ আছে বলে জেনেছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT