পত্রিকা পড়ে শুয়ে বসে সময় কাটান সাবেক ওসি প্রদীপ

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৯, ২০২১
  • 268 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

কক্স৭১
এক সময় অস্ত্রের মুখে নিজেই তাড়া করতেন অপরাধীদের। নিরাপরাধ মানুষও বাদ যাননি এ থেকে। যাকে খুশি তাকে তুলে এনে নির্যাতন, আটকে রাখার মতো কাজও করেছেন হরহামেশা। অর্থের বিনিময়ে আবার ছেড়েও দিয়েছেন। টেকনাফ অঞ্চলে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পুলিশে দক্ষ কর্মকর্তা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া সেই প্রদীপ কুমার দাশের সময় এখন কাটছে কারাগারে।
টেকনাফ থানার সাবেক এই অফিসার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ কারাগারে পেয়েছেন বিশেষ শ্রেণির মর্যাদা, ডিভিশন। তাই অন্য অপরাধীদের সঙ্গে একঘরে থাকতে হচ্ছে না তাকে। একাই থাকছেন। সেই ঘরেই পায়চারি করে, পত্রিকা পড়ে, শুয়ে-বসে কাটছে একসময়ের শত ব্যস্ত এই পুলিশকর্তার দিনরাত।
সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা হত্যা মামলায় তিনি আসামি। সেই সঙ্গে, অবৈধ উপায়ে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে করা দুদকের মামলাও আছে তার বিরুদ্ধে।চট্টগ্রাম কারাগার সূত্রে জানা গেছে, ডিভিশন সেলের একটি কক্ষেই থাকেন প্রদীপ। তার সঙ্গে আর কোন বন্দি নেই। সেখানে একটি খাট, ফ্যান রয়েছে। প্রতিদিন একটি দৈনিক পত্রিকা বরাদ্দ আছে। তাছাড়া বিছানা, চাদর, বালিশ ও মশারিও রয়েছে। ডিভিশনপ্রাপ্তির জন্য আছে নিজস্ব বাথরুম। আলোচিত মামলায় অভিযুক্ত হওয়ায় বাইরের কারও সঙ্গে যেন যোগাযোগ না হয় সে বিষয়ে সতর্ক আছে কারা কর্তৃপক্ষ।সিনহা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কারাগারে থাকা প্রদীপকে দুদকের করা মামলায় গত ১৪ সেপ্টেম্বর গ্রেপ্তার দেখানো হয়। সেই থেকে তিনি চট্টগ্রাম কারাগারেই আছেন। দুদকের মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, প্রদীপ ও তার স্ত্রী চুমকির বিরুদ্ধে ১৩ লাখ ১৩ হাজার ১৭৫ টাকার সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন এবং ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৫ হাজার ৬৩৫ টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়।কারাগার সূত্রে আরো জানা যায়, বেশিরভাগ সময় নিরিবিলি থাকেন তিনি। কারাবিধি অনুযায়ী সরকারের যে খাবার মেন্যু সেখান থেকেই খাবার খান। মাঝে মধ্যে ক্যান্টিন থেকে খাবার কিনে খান। কারাগারের ভিতরে আনুষ্ঠানিকতা বাদে বাকি সময়, তার মতো করেই ঘুমান। তার মতো করেই ঘুম থেকে ওঠেন। কারাগারে অন্য বন্দিদের মতো তিনি অনুশোচনাও করেন।পরিবারের সদস্যরা কেউ দেখা সাক্ষাৎ করতে আসে কি-না এমন প্রশ্নে কারাগারের এক কর্মকর্তা জানান, পরিবারের কেউ আসেন না। আর করোনার কারণে বন্দিদের সঙ্গে দেখা করা আপাতত বন্ধ রয়েছে।মোবাইলে কথা বলার সুযোগ পায় কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না তার (প্রদীপ) কথা বলার সুযোগ নেই। নিষেধাজ্ঞার কারণে বাইরের কারও সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতে পারেন না।’

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT