শিরোনাম :
শেখ হাসিনার জম্মদিন উপলক্ষ্যে ঈদগাঁওতে ১ হাজার ৫শ জনের মাঝে টিকা আইসক্রিম বিক্রেতা থেকে কোটিপতি রোহিঙ্গা জালাল : নেপথ্যে ইয়াবা ব্যবসা সিনহা হত্যা মামলার চতুর্থ দফা সাক্ষ্যগ্রহন শুরু উখিয়ার রোহিঙ্গা ছৈয়দ নুরের এনআইডি বাতিল করতে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কলাতলীতে হোটেল দখলে নিতে তৎপর প্রতারক চক্র অবাধ তথ্য প্রবাহ দূর্নীতি প্রতিরোধে সহায়ক ভুমিকা রাখতে পারে : সুজনের আলোচনা সভায় বক্তারা ফাঁদে ফেলে ব্ল্যাকমেইল করতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নারী শিক্ষক ২০ হাজার ইয়াবা সহ আটক ১ জেলার বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রাসায় কর্মরত রোহিঙ্গাদের সরকারি সুযোগ সুবিধা বাতিলের দাবীতে আবেদন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীর হাতে অপহৃত ৩ বাংলাদেশীকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব

নার্সিং ইনষ্টিটিউটে জোর পূর্বক বিদ্যূৎ সরাঞ্জাম মেরামতের নামে বিপুল টাকা আত্মসাতের পায়তারা করছে সিন্ডিকেট

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২০
  • 260 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

মাহাবুবুর রহমান.
কক্সবাজার নার্সিং ইনষ্টিটিউটে জোর পূর্বক মেরামতের নামে বিপুল টাকা আত্মসাৎ করার পায়তারা করছে একটি সিন্ডিকেট। নার্সিং ইনষ্টিটিউটের কোন চাহিদা ছাড়া গণপূর্ত অধিদপ্তর নিজেরা চাহিদা পত্র তৈরি করে বিদ্যূৎ সরাঞ্জাম নতুন করে স্থাপনের নামে লুটপাট করতে চাইলেও তাতে রাজি হচ্ছে না নার্সিং ইনষ্টিটিউটের প্রধান। তবে সে জন্য তার কাছে হুমকি ধমকি আসছে বলে ও জানান তিনি। বিষয়টি জানিয়ে ইতি মধ্যে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছেন তিনি। এদিকে ঠিকাদার জোর করে কাজ করতে চাইছে বলে জানান নার্সিং ইনষ্টিটিউট কর্তৃপক্ষ। এদিকে গণপূর্ত অধিদপ্তর বলছে বিষয়টি সমাধানের দায়িত্ব নিয়েছে সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে কক্সবাজার নার্সিং ইনষ্টিটিউটে সম্প্রতী ক্ষুদ্র মেরামতের নামে সামান্য দরজা জানালা ঠিক করে,বাথরুমের কিছু অংশ মেরামত,কিছু অংশ টাইল্স লাগিয়ে ৭ লাখ টাকার মেরামতের বিল করছে গণপূর্ত অধিদপ্তর। উক্ত মেরামত কাজের নামে লুটপাটের আক্ষেপ না গুছতেই সেখানে হাজির আরেক ঠিকাদার। তার দাবী নার্সিং ইনষ্টিটিউটের সমস্ত বৈদ্যতিক তার,ফ্যান,লাইট,সুইস সহ সব কিছু নতুন করে স্থাপন করা হবে। ওয়ারিং নয় কিন্তু সেখানে থাকা বৈদ্যতিক সরাঞ্জাম নতুন করে দেওয়া হবে। এর জন্য প্রায় ২০ লাখ টাকার বাজেট আছে। কিন্তু নার্সিং ইনষ্টিটিউট কর্তৃপক্ষের দাবী ভবনের সম্পূর্ন ওয়ারিং পরিবর্তন করে নতুন করে সব কিছু লাগালেও ২০ লাখ টাকা খরচ হবে না। এখানে প্রত্যেকটা জিনিসের বাজার মূল্যের চেয়ে কয়েক গুন বেশি দাম ধরা হয়েছে। সেটা দেখা আমরা কাজ করাতে রাজি হয়নি। এতে গণপূর্ত অধিদপ্তর থেকে আসা ঠিকাদার জোর করে কাজ করতে চাইছে। পরে বিষয়টি জানিয়ে কাজ না করার জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে জানিয়ে কক্সবাজার নার্সিং ইনষ্টিটিউটের ইনচার্জ করুনা রানী ব্যাপারী জানান,আমাদের ভবনে আগে যে মেরামত কাজ হয়েছে সেখানেও নাকি ৭ লাখ টাকার কাজ, যেটা আমাদের মোটেও পছন্দ হয়নি এখন বিদ্যূৎ মেরামতের নামে যা বলা হচ্ছে সেটা কোন ভাবেই মেনে নেওয়া যায়না। এখানে প্রত্যেকটা জিনিসের দাম অতিরিক্ত ধরা হয়েছে। আমার চাকরী শেষ পর্যায়ে যদি কোন সমস্যা হয় আমার সারা জীবনের মান সম্মান শেষ হয়ে যাবে তাই আমি এই কাজ করতে রাজি হয়নি। সে জন্য আমার বিরুদ্ধে অনেক কিছু করা হচ্ছে। তিনি বলেন,আমাদের এখানে কাজ করতে হলে আমাদের চাহিদা থাকতে হবে। এখন আমরা জানিনা উনারা এসে বলছে আমাদের ভবনের বিদ্যূৎ সরাঞ্জাম পরিবর্তন বা মেরামত করে দেবে। এটা খুবই অবাক হওয়ার মত ব্যাপার। এ ব্যপারে কক্সবাজার গণপূর্ত অধিদপ্তরের উপ সহকারী প্রকৌশলী রিটন চাকমা বলেন,নার্সিং ইনষ্টিটিউট ২০১৪ সালের দিকে চাহিদা দিয়েছিল এখন এসে বাজেট পেয়েছি। তাই এখন নিয়ম অনুযায়ী টেন্ডার করে ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়েছে চট্টগ্রামের নাছির উদ্দিন নামের এক ঠিকাদার কাজ পেয়েছে। এখন নার্সিং ইনষ্টিটিউট কর্তৃপক্ষ বলছে উনারা কাজ করাবে না। এতে ঠিকাদার চরম বিপাকে পড়েছে। তিনি জানান বর্তমান নার্সিং ইনষ্টিটিউটের প্রধানকে কেউ হয়তো ভুল বুঝিয়েছে এখানে অনিয়ম বা দূর্নীতি হচ্ছে। এখানে টেন্ডারে যা ধরা আছে সেভাবে কাজ হবে প্রয়োজনে তিনি একটি কমিটি করে দিয়ে শতভাগ কাজ বুঝে নিতে পারে। এটা সত্য তিনি কাজ করবে না জানিয়ে আমাদের কাছে চিঠি দিয়েছে সেটা নিয়ে আমাদের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছে উনারা বর্তমান সদর হাসপাতালের কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি সমাধানের দায়িত্ব দিয়েছেন। উপ সহকারী প্রকৌশলী রিটন চাকমা বলেন,বর্তমানে একই প্রজেক্টের আওতায় জেলা সদর হাসপাতালে সব বিদ্যূৎ তার,লাইট,ফ্যান মেরামত বা পরিবর্তনের কাজ চলছে তাদের কোন আপত্তি নাই। শুধু নার্সিং ইনষ্টিটিউট আপত্তি করছে। এদিকে ঠিকাদার নাছির উদ্দিন এবং জেলা সদর হাসপাতালের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত তত্ববধায়ক ডাঃ রফিকুসালেহীন কে বেশ কয়েক বার ফোন করলে সংযোগ পাওয়া সম্ভব হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT