দু’পাড়ের মানুষের জীবন থমকে দিয়েছে রামু সোনাইছড়ি ব্রীজঃ ৩ বছরে অর্ধেক কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, মে ২০, ২০১৯
  • 109 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

 

মাহাবুবুর রহমান.
রামু উপজেলার কাওয়ারখোপ ইউনিয়ন এবং রাজারকুল ইউনিয়নের মানুষের মাঝে সহজে যোগাযোগ এবং জীবন মান সহজ করার লক্ষে সোনাইছড়ি ছড়ার উপর ব্রীজ নির্মাণ করার সিন্ধান্ত নেয় সরকার। স্থানীয় সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলের আবেদানে ২০১৬ সালে প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যায়ে সোনাইছড়ি ব্রীজটি টেন্ডার প্রকৃয়া সম্পন্ন করে কার্যাদেশ দেওয়া হয় ঠিকাদারী প্রতিষ্টানকে। ২ বছরের মধ্যে এই ব্রীজের কাজ শেষ করার কথা থাকলেও ৩ বছরে মূল কাজের অর্ধেক ও শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার।আবার সব কিছু জেনেই চোখ বন্ধ করে রেখেছে রামু উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অফিস। ফলে মাঝ খানে সিমাহীন কষ্টে আছে দুই ইউনিয়নের ৪ টি গ্রামের কয়েক লাখ মানুষ। তবে ঠিকাদার বলছে একটা ব্রীজ করতে ৩ বছর সময় বেশি না। মানুষের অভিযোগ অমূলক।
সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে রামু উপজেলার পশ্চিম মনিরঝিল এলাকায় সোনাইছড়ি নামক স্থানে গিয়ে দেখা গেছে একটি ব্রীজ অর্ধ নির্মিত অবস্থায় পড়ে আছে। আর তার পাশ দিয়ে খুবই ঝুকিপূর্ন ভাবে চলছে কয়েকটি ছোট যানবাহন তবে বড় কোন গাড়ি চলাচলের কোন সুযোগ নেই। অথচ ব্রীজটির উভয় পাশেই পাকা রাস্তা শুধু ব্রীজের কাজ শেষ না হওয়ার কারনে দুই পাড়ের মানুষের জীবনমান থমকে আছে। আলাপ কালে স্থানীয় বাদশা মিয়া বলেণ,এটা একটি বড় ছড়া ছিল সারা বছর পানি থাকে এখানে। তাই বহুযুগ ধরে এখানে গাছের ব্রীজ ছিল পরে এলাকার মানুষের দাবী প্রেক্ষিতে এই ব্রীজটি পাকা করে নির্মাণের কাজ শুরু হয়। কিন্তু এখন প্রায় ৩ বছরের বেশি সময় পেরিয়ে গেলের মূল কাজের অর্ধেকও শেষ হয়নি।ফলে মানুষের যোগযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। কোন প্রকার টমটম গাড়ী চলতে পারলেও কার মাইক্রো চলতে পারেনা।
নজরুল ইসলাম নামের একজন বলেন,কিছুদিন আগে আমার মা খুব অসুস্থ হওয়ার ফলে কক্সবাজার সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছিলাম। কিছুদিন পরে সুস্থ্য হলেও আমি এ্যমবোলেন্স নিয়ে বাড়িতে আনি। কিন্তু সোনাইছড়ি ব্রীজের পরে আর আনতে পারিনি। কারন ব্রীজ নষ্ট হওয়াতে গাড়ী আর আসেনি। তিনি বলেন,শুধু আমি না এলাকার কয়েক লাখ মানুষ চরম অসহায় অবস্থায় আছে অনেক গর্ভবতি মহিলাকে নিয়ে চরম ঝুকিতে থাকে মানুষ। তারা বলেন,শুনেছি আসাদ উল্লাহ নামের এক প্রভাবশালী ঠিকাদার এই ব্রীজের কাজ পেয়েছে। তিনি ১ মাস কাজ করলে ২ মাস বন্ধ রাখে আর কাজের মানও খুবই খারাপ হয় কিন্তু আমাদের কথা কে শুনে মনে হয় উপজেলা প্রকৌশল অফিসও ঠিকাদারের সাথে জড়িত হয়ে ব্রীজ নির্মাণের চরম অনিয়ম দূর্নীতি করছে।
এ ব্যপারে রামু কাওয়ারখোপ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহামদ বলেন,আমার এলাকার মানুষের দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে বর্তমান সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলের আন্তরিক প্রচেস্টায় এই সোনাইছড়ি ব্রীজটি টেন্ডার হয়। কিন্তু ২০১৬ সালে কাজ শুরু হলে ও এখনো অর্ধেক কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার। শুনেছি উক্ত ঠিকাদার আসাদউল্লাহ কাউকে পাত্তা দেয়না। তাকে অনেকে অনুরোধ করার পরও কাজটি করছে না ফেলে রেখেছে,এবং কাজের মানও ভাল হচ্ছে না। তবুও আমরা চাই কাজটি দ্রুত শেষ হওক মানুষ একটু সস্তি পাক। সরকার টাকা দিয়ে উন্নয়ন করছে কিন্তু কিছু ঠিকাদার এবং সরকারি কর্মচারীদের কারনে সেই উন্নয়নের সূফল সাধারণ মানুষ পর্যন্ত পৌছাতে পারছেনা।
রামু উপজেলা সুজন সভাপতি মাস্টার মোহাম্মদ আলম বলেণ,ঠিকাদার কাজ করছেনা কিন্তু প্রকৌশল অফিস কি করছে ? নিয়ম অনুযায়ী ঠিকাদারের কাজ বাতিল করার কথা সেটা করেনি কেন? তাহলে নিশ্চই তারাই সরকারের উন্নয়নের অন্তরায়। তাই বিষয়টি দ্রুত তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান তিনি।
আর উপজেলা প্রকৌশল অফিসের গাফেলতি স্পষ্ট হয় উপজেলা উপ-সহকারী মোঃ আবুছদ্দিনের বক্তব্যে তিনি বলেণ,কাজ শুরু হয়েছে ২ বছর,কাজ চলমান কোন সমস্য নেই দ্রুত কাজ শেষ হবে। তবে ভিন্ন মত পোষন করেন উপজেলা প্রকৌশলী জাকির হোসেন,তিনি বলেণ,প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিতব্য এই ব্রীজের কাজের মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগে ২০১৬ সালে কাজ শুরু হয়েছে এতদিনে শেষ হওয়ার কথা। তবে ঠিকাদারের গাফেলতির কারনে শেষ হয়নি। তবে আসা করছি দ্রুত কাজ শুরু করলে শেষ হয়ে যাবে।
এ ব্যাপারে ঠিকাদার আসাদউল্লাহ বলেন,একটা ব্রীজের জন্য ৩ বছর বেশি সময় না,এখানে অনেক কাজ সাধারণ মানুষ সেগুলো কি বুঝবে? কাজ ঠিকই চলছে। এলাকার মানুষের অভিযোগ অমূলক।

এদিকে কক্সবাজার সদর রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল বলেণ,আমি ৪ মাস আগে সেই এলাকাতে গিয়ে দেখেছিলাম কিছু রট দিয়ে ব্রীজটি খাড়া করে রেখেছে। বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ন তাই আমি খোঁজ নিয়ে কাজ দ্রুত শেষ করতে নির্দেশ দেব।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT