দখল আর দূষনে হারিয়ে যাচ্ছে ফুলেশ্বরী নদী!

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০১৯
  • 64 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
Exif_JPEG_420

এম আবুহেনা সাগর,ঈদগাঁও
ঈদগাঁও নদী এখন দখল আর দূষণে মুমূর্ষু হয়ে পড়েছে। পার্বত্য বান্দরবানের পুর্ব থেকে উৎপত্তি হয়ে এ নদীটি ঈদগড়,ঈদগাঁও,ইসলামাবাদ, জালালাবাদ,পোকখালীর বুক চিরে প্রবাহিত হয়ে মহেশখালী চ্যানেলে পতিত প্রাচীন এবং ঐতিহ্যবাহী এ নদী দখল দূষণের থাবায় মুমূর্ষু বললেই চলে। নদী খেকোদের করাল গ্রাসে নদীর নাব্যতা হারিয়ে মরাখালে পরিনত হওয়ার উপক্রম দেখা দিয়েছে।
দেখা যায়,নদীর দু’কুল জুড়ে গড়ে উঠেছে ঘর বাড়ি,দোকানপাঠ। দখল-বে দখলের দোলা চলে মৃত প্রায় নদীর চেরচেনা রূপ। বাজারের ডিসি সড়কের এক পাশে পেছনের দিকে নদীর তীর বর্তী প্রায় অংশে ভরাট করে দোকানপাঠের গোদাম বা কাজ করার চিত্র চোখে পড়ে। আবার নদীর তলদেশ ভরে ফসলের ক্ষেতে পরিনত হয়েছে। একদিকে দখলের প্রভাব,অন্যদিকে খননের অভাব। ফলে হারিয়ে যাচ্ছে ঈদগাঁও বা ফুলেশ্বরী নদীটি। নদী তীরবর্তী ঈদগাঁও, ইসলামাবাদ,জালালাবাদ,পোকখালী,চৌফল দন্ডীর বিস্তৃত এলাকাজুড়ে এ নদীর পানি সেচের মাধ্যমে বোরো আবাদ করে থাকে। নদীর নাব্যতা হারিয়ে যাওয়ায় প্রতিবছর উপরোক্ত এলাকার হাজার হাজার হেক্টর বোরো জমির অধিকাংশই সংকট দেখা দেয়ার কারনে অনাবাদী থেকে যায় বলে জানান স্থানীয় কৃষকরা। এককালে এই নদীতে শীত বা বর্ষা সবমৌসমে অথৈ পানি থাকত। হরেক রকমের পাল তোলা নৌকা চলাচল করত। জেলা শহরের সাথে যোগাযোগ ও পন্য আনা নেয়ার জলপথ হিসাবে ব্যবহার হতো। হাজার হাজার কৃষকের পণ্য এ নদী দিয়ে হাট বাজারে নেয়া হত। বর্তমানে নদীটি দখলে থাবার পূর্বের সেই চিত্র এখন কল্পকাহিনীতে পরিনত হয়ে পড়েছে। তীরবর্তী গড়ে ওঠা দোকানপাঠ,হোটেল রেস্তেরার সমস্ত ময়লা আবর্জনা ফেলা হচ্ছে ঈদগাঁওর ঐতিহ্যময় ফুলেশ্বরী নদীতে। সচেতন মহলের মতে, ঐতিহ্য বাহী ও জনগুরুত্ব পূর্ণ নদীটি কয়েক বছরে দখলে থাবায় একেবারে মুমূর্ষু হয়ে পড়ে। গড়ে উঠেছে দোকানপাঠ বা ঘরবাড়ী। ফলে নদীটি এখন ভরাখালে পরিনত হতে চলছে। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করায় জনমনে বিরুপ প্রতিক্রিয় সৃষ্টি হয়েছে। এক মুরব্বীর মতে,নদীর একপাশে ভেঙ্গে অন্যপাশ গড়েছে। নদীর বুকে হরেক রকম চাষাবাদ করে যাচ্ছে অনেকে।
উল্লেখ্য,ঈদগাঁও নদী ঘিরে নির্মিত অবৈধ স্থাপনা দখলমুক্ত করতে কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট ১০ জনকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন ঈদগাঁওর কৃতি সন্তান স্বনামধন্য আইনজীবী ব্যারিস্টার নুরুল আজিম। তিনি উল্লেখ করেন যে,৪১কিলোমিটার দীর্ঘ ও এভারেজ ১১০ মিটার প্রস্থ বিশিষ্ট ঈদগাঁও নদী অবৈধ দখলদারের কারণে দিনদিন সংকুচিত হয়ে আসছে। নদী হারাচ্ছে তার নাব্যতা। বন্যায় ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ফসলী জমি,দোকানপাট ও ঘরবাড়ি। স্থানীয় জনগণ প্রশাসনের দ্বারস্থ হলেও এর আশানুরূপ সুফল পাচ্ছেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT