শিরোনাম :
রামু উপজেলা পরিষদের সৌন্দর্য্য নষ্ট করে দোকান বরাদ্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ঈদগাঁও বটতলী-ইসলামপুর বাজার সড়কের বেহাল দশা আইসক্রিম বিক্রেতা থেকে কোটিপতি রোহিঙ্গা জালাল : নেপথ্যে ইয়াবা ব্যবসা পৌর কাউন্সিলার জামশেদের স্ত্রী‘র ইন্তেকাল : সকাল ১০ টায় জানাযা উখিয়ায় বিদ্যুৎ পৃষ্টে একজনের মৃত্যু কক্সবাজারে বেড়াতে এসে অতিরিক্ত মদপানে চট্টগ্রাম ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু টেকনাফে নৌকা বিদ্রোহীদের জন্য কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে; সাবরাং পথসভায় মেয়র মুজিব ৮ হাজার পিস ইয়াবা, যৌন উত্তেজক সিরাপ নগদ টাকা সহ আটক ১ মহেশখালী পৌর বিএনপির সভাপতি বহিস্কার,কমিটি বাতিল করোনা:ছয় মাস পর দৈনিক শনাক্ত ৬ শতাংশের কম

টেকনাফে হু হু করে বাড়ছে পশুর দাম

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, জুলাই ১০, ২০২১
  • 81 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

আবদুল্লাহ মনির,টেকনাফ
হু হু করে বাড়ছে কক্সবাজারের টেকনাফে কোরবানি পশুর দাম। সীমান্ত দিয়ে সরকার পশু আমদানি বন্ধ ঘোষনায় এমন পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। এ-হারে গবাদিপশুর দাম বৃদ্ধি পেলে অনেকেই কোরবানি নিয়ে সংকটে পরবে। এমন সংকটের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশে সর্ব দক্ষিণের একমাত্র মিয়ানমার কেন্দ্রিক করিডোর ব্যবসায়ীসহ পশু ক্রেতারা।
এদিকে দেশের খামারিদের লোকসানের কথা চিন্তা করে গতকাল শুক্রবার থেকে দক্ষিন চট্রগ্রামের একমাত্র করিডোর টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপে মিয়ানমার থেকে গবাদিপশু আমদানি বন্ধ করে দেয় সরকার। এর পর পরই উখিয়া-টেকনাফ তথা দক্ষিন চট্রগ্রামের মানুষের কোরবানি পশু সংকটের কথা বলছেন সংশ্লিষ্টরা। পাশপাশি হাট বাজারে দুই-তিন গুন দাম বৃদ্ধি পেয়েছে গবাদিপশুর।

এ বিষয়ে টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপ করিডোরের আমদানিকারক সমিটির সভাপতি আবদুল্লাহ মনির জানান, ‘হঠাৎ করে মিয়ানমার থেকে গবাদি পশু বন্ধ হওয়ায় এই অঞ্চলে সংকট দেখা দিয়েছে। তাছাড়া হাট বাজারের হু হু করে পশু দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই অবস্থায় সংকট নিরসনে প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি।’

জানতে চাইলে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. পারভেজ চৌধুরী বলেন, ‘দেশের খামারীদের উৎসাহ প্রদানের পাশাপাশি করোনা সংক্রমনকে মাথায় রেখে সরকারের নির্দেশে মিয়ানমার থেকে গবাদিপশু আমদানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি কেউ আইন অমান্য করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। পাশপাশি হাট বাজারগুলো নজরদারি বাড়ানো হবে।’

এদিকে কক্সবাজার জেলায় ১১ লাখ রোহিঙ্গাসহ ৩৫ লাখ মানুষের বসতি। অধিকাংশ এসব মানুষের কোরবানি পশু নির্ভরশীল মিয়ানমার থেকে আসা গবাদিপশু উপর। এছাড়া মিয়ানমার থেকে গবাদিপশু বন্ধ হওয়ায় হাট বাজারে পশু দাম দুই-তিন গুন বেড়েছে। ফলে অঞ্চলের প্রায় দশ হাজার মানুষ কোরবানি পশু নিয়ে চিন্তিত রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সর্বশেষ চলতি মাসে গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার দুইদিনে মিয়ানমার থেকে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ করিডোরে গরু-মহিষ আসছে ৩ হাজার ১৩০টি। তার বিপরীতে সরকার ১৫ লাখ ৬৫ হাজার টাকা রাজস্ব পেয়েছেন। এর আগে গত মে ও জুন এ দু’মাসে মিয়ানমার থেকে ২৫ হাজার ৮৬৮টি গরু ও ৪ হাজার ২৫৮টি মহিষ আমদানি করা হয়েছে। আর আমদানি বাবদ এক কোটি ৫০ লাখ ৬৩ হাজার টাকা রাজস্ব আয় করেছে শুল্ক বিভাগ।

সাবেক সাংসদ আবদুর রহমান বদি জানান,‘মিয়ানমার থেকে গবাদিপশু আসা বন্ধ হওয়ায় তার অঞ্চলে প্রায় দশ হাজার মানুষ কোরবানি পশু নিয়ে চিন্তায় রয়েছে। তার উপর এখানে ১১ লাখ রোহিঙ্গাদের বসতি। তাছাড়া দক্ষিন চট্রগ্রাম অঞ্চলে খামারিদের সংখ্যা কম।’
তিনি জানান, ‘লকডাউনের কারনে ঢাকাসহ উত্তর অঞ্চল থেকে খামারিরা এদিকে গবাদিপশু আনছে না। এতে হাট বাজারে পশুর দাম আকাশ ছোঁয়ার মত। এই অবস্থায় কক্সবাজারসহ দক্ষিন চট্রগ্রামে কোরবানি পশু’র সংকট দেখা দিয়েছে। এমত অবস্থায় বিশেষ বিবেচনায় মিয়ানমার সীমান্তের এক মাত্র করিডোর খুলে দিয়ে এ সংকট নিরসনের জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে অনুরোধ করছি।’

গবাদিপশু ব্যবসায়ী আবু ছৈয়দ জানান, ‘মিয়ানমার থেকে পশু আমদানি বন্ধ থাকায় সামনে সংকট চলছে। ইতি মধ্য হাট বাজারগুলোতে গরু-মহিষের দাম কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে একমন গরুর মাংস ৩০ হাজার দামে কোরবানি পশু বিক্রি হচ্ছে।’
তিনি জানান, ‘তাছাড়া পর্যাপ্ত পশু না থাকায় অনেক মানুষ পশু কোরবানি দিতে পারবে কিনা সন্দেহ রয়েছে। এসব মানুষের কথা চিন্তা করে মিয়ানমার থেকে গবাদি পশু বন্ধ খুলে দিতে প্রধানমন্ত্রীসহ সকল সংশ্লিষ্টদের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।’

 

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT