শিরোনাম :

চৌফলদন্ডিতে জমির বিরোধে নারী সহ একই পরিবারের ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, জানুয়ারী ৩, ২০২১
  • 137 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

বার্তা পরিবেশক
কক্সবাজারের সদর উপজেলা চৌফলদন্ডির কোনার পাড়ায় জমি’র বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলা ও লুটপাটে নারী সহ একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়েছে। হামলাকারীদের দা-কিরিচের কুপের আঘাতে আহত ৪ জন আশংকা জনক অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় হামলাকারী অবৈধ দখলবাজদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।
গত শুক্রবার (১ জানুয়ারী ২০২১) দুপুর ২ টার দিকে চৌফলদন্ডির কোনার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতের মধ্যে চৌফলদন্ডির কোনার পাড়া এলাকার মৃত আবুল বশরের ছেলে ছৈয়দ আলম (৩৫) জানান, বেশ কিছু দিন ধরে একই এলাকার মৃত আবু বক্করের ছেলে মো: আলমগীর (৪৮) ও তার লোকজন অবৈধভাবে তাদের চলাচলের রাস্তা দখলের চেষ্টা করে আসছিল। এরই জের ধরে শুক্রবার দুপুর ২ টার দিকে আলমগীরের নেতৃত্বে পরিকল্পিতভাবে ৭-৮ জন ধারালো অস্ত্রশস্ত্র সজ্জিত লোক ছৈয়দ আলম ও তার পরিবারের লোকজনের উপর হামলা চালায়।
মো: আলমগীরের নেতৃত্বে হামলাকারীদের মধ্যে ছিল চৌফলদন্ডির দক্ষিণ পাড়ার মৃত মনছুর আলমের ছেলে মো: ইমরান (৩০), কোনারপাড়ার মো: আলমগীরের ছেলে ওমর ফারুক (২০), মৃত মনছুর আলমের ছেলে মো: হুমায়ুন (২৪), মো: সাইফুল (২২), দক্ষিণ পাড়ার আবদু রশিদের ছেলে মো: নাছির (২২), কোনারপাড়ার আলমগীরের ছেলে আবদুল মারুফ (১৯) সহ ৭-৮ জনের একটি দল।
হামলাকারীরা পরিকল্পিতভাবে দা, কিরিচ, ছোরা, লোহার রড, হাতুড়ি ও লাঠি দিয়ে ছৈয়দ আলম ও নারী সহ তার পরিবারের ৫ জনকে মারাত্বকভাবে আহত করেছে। এতে আহত হয় ছৈয়দ আলম, তার সদ্য বিদেশ ফেরত বড় ভাই লাল মোহাম্মদ, ছোট ভাই মনচুর আলম, হামলাকারীদের হাত থেকে বাবাকে বাচাঁতে গিয়ে আহত হয়েছে লাল মোহাম্মদের স্কুল পড়ুয়া ছেলে মো: এনাম ও ছৈয়দ আলমের ছোট বোন মিনুয়ারা বেগম। হামলাকারীরা মিনুয়ারা বেগমকে শুধু হামলাই চালায়টি পাশাপাশি শ্লীলতাহানির চেষ্টাও চালিয়েছে। এছাড়া হামলাকারীরা প্রায় লক্ষাধিক টাকার লুটপাট ও ভাংচুর চালিয়েছে। তারা দামী মোবাইল ও প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র লুট করেছে। হামলাকারীরা ওই এলাকার দখলবাজ ও ত্রাস সৃষ্টিকারী হওয়ায় কেউ তাদের রক্ষা করতে পারছিলনা। পরে জাতীয় সেবা ‘৯৯৯’ এ ফোন করা হলে কক্সবাজার সদর থানা থেকে এসআই মো: আতিকুর ইসলাম ভূঁইয়া’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। পরে আহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের বেশিরভাগই মাথা, বুক, পিট সহ শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপের জখম রয়েছে। আহতদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।এ ব্যাপারে জানতে কক্সবাজার সদর থানার এসআই মো: আতিকুর ইসলাম ভূঁইয়া’র সাথে কথা হলে তিনি বিষয়টি স্বীকার করে বলেন জাতীয় সেবা ‘৯৯৯’ এ ফোন করার পরে ঘটনাস্থলে যাওয়া হয় এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা হয়।এদিকে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দায়ের করা খবরে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে। তারা পুনরায় হামলা চালানোর চেষ্টায় হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এ অবস্থায় রীতিমত জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে অনিশ্চিয়তায় পড়েছেন আহত ও তাদের পরিবারের লোকজন। তারা প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT