শিরোনাম :
কক্সবাজারে বিমান উড্ডয়নের সময় ধাক্কাতে ২ টি গরুর মৃত্যু : বড় দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা চকরিয়ায় ব্যালট পেপার বিনষ্টের অভিযোগে মামলা: প্রিজাইডিং অফিসার কারাগারে খুরুশকুল এলাকায় অভিযানে ১ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-আটক ১ কস্তুরাঘাট সংলগ্ন বাকঁখালী নদী এখন প্রভাবশালীর ব্যাক্তিগত জমি বদরখালীতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় নৌকা প্রার্থীর ভাগ্নেকে পিটিয়ে হত্যা ঈদগাঁওতে শীতমৌসুমে গরম কাপড় কিনতে ক্রেতাদের ভীড় চকরিয়ায় ১০ ইউপিতে আ‘লীগ ৫ স্বতন্ত্র ৫ মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যাচেষ্টা, মহেশখালীর মেয়রসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা পিএমখালীতে ইয়াবা সহ আটক হোসেনের সিন্ডিকেট এখনো অধরা নাফ নদ থেকে ১ কেজি আইসসহ পাচারকারী আটক

চকরিয়া-পেকুয়া ও লামায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি স্বামী-স্ত্রীসহ নিহত ৪

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, জুলাই ১৫, ২০১৯
  • 158 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
????????????????????????????????????

মো. সাইফুল ইসলাম খোকন, চকরিয়া ॥ মাতামুহুরী নদীর দু’ তীরবর্তী বান্দরবনের লামা ও কক্সবাজারের চকরিয়া ও পেকুয়ায় সমুদ্রে পূর্নিমার জোয়ার থাকার কারণে অস্বাভাবিক ভাবে বন্যার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ৩ উপজেলার নিন্মঞ্চালে বসবাসরত হাজার হাজার বন্যার্থ মানুষের দূর্ভোগ বৃদ্ধি পেয়েছে। দেখা গেছে, অধিকাংশ খাবার পানির নলকূপ পানিতে ডুবে থাকায় বিশুদ্ধপানির তিব্র সংকট দেখা দিয়েছে। গ্রামীণ অভ্যান্তরিন সড়ক গুলো পানিতে ডুবে থাকায় মানুষের কষ্টের শেষ নেই। রোববার (১৪ জুলাই) রাত ২টায় লামা উপজেলার সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড পশ্চিম মধুঝিরি এলাকায় পাহাড় ধসে বসতবাড়িতে মাটি চাপা পড়লে নুরজাহান বেগম (৫৫) নামে এর নারী মারা যায় ও একই পরিবারের ৬ জন আহত হয়েছেন।
অপরদিকে চকরিয়া উপজেলার পূর্ববড়ভেওলার আটারকুম এলাকায় সকাল ১০টায় পানিতে ভেসে আসা কাঠ সংগ্রহ করতে গিয়ে রিয়াজ উদ্দিন (২২) নামে এক যুবক পানিতে ভেসে মারা গেছে। ভেসে যাওয়া যুবক ওই ইউনিয়নের দেয়ারচর এলাকার জামাল উদ্দিনের পুত্র। তার লাশ এখনো পাওয়া যায়নি।
এছাড়া উপজেলার দূর্গম পাহাড়ী এলাকা বমুবিলছড়ি ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ডের বমুরকুল এলাকায় পাহাড় ধসে একই পরিবারের স্বামী ও স্ত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। গত শনিবার গভীর রাত দুই টার দিকে ঘটনাটি ঘটে।
পাহাড় ধসে নিহতরা হলেন, বমুবিলছড়ি ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ডের বমুরকুল এলাকার দিনমুজুর মোহাম্মদ ছাদেক (৩৬) ও তাঁর স্ত্রী ওয়ালিদা বেগম (২২)। নিহত ছাদেক পেশায় একজন দিনমজুর। তিনি কয়েক বছর আগে আলীকদম উপজেলা থেকে বমুরকুল এলাকায় গিয়ে পাহাড়ের পাদদেশে বসতঘর গড়ে তোলেন।
বমুবিলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মতলব পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রী নিহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, টানা কয়েকদিন ধরে পাহাড়ে ভারী বৃষ্টি হচ্ছিল। রবিবার ভোর রাতেও প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। শনিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ইউনিয়নের বমুরকুল এলাকায় পাহাড় ধসে একটি বসতঘরের ওপরে পড়ে। এ সময় ঘুমন্ত অবস্থায় মাটি চাপা পড়ে ওই পরিবারের স্বামী-স্ত্রী মারা যান। স্থানীয় লোকজন মাটি সরিয়ে তাঁদের লাশ উদ্ধার করে। পাহাড় ধসের সময় বসতঘরটিতে স্বামী-স্ত্রী ছাড়া আর কেউ ছিলেন না বলে জানাগেছে।

টানা বর্ষণে ২য় বারের মত বড় ধরনের বন্যায় প্লাবিত হয়েছে বান্দরবানের লামা-কক্সবাজারের চকরিয়া ও পেকুয়ায় উপজেলা। রোববার ভোররাত থেকে অস্বাভাবিক গতিতে বাড়তে থাকে মাতামুহুরী নদী ও ছড়া খালের পানি। লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল জানান, মুহুর্তে উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নের প্রায় ৪০ হাজারের অধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। লামা বাজার সহ আশপাশের সকল এলাকায় পানিতে ডুবে যায়।
নিহত পরিবারের মাঝে সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণ বাবদ তার পরিবারকে নগদ ২৫ হাজার টাকা ও আহত হিসেবে তার ছেলে ও ছেলের বউকে ৫ হাজার করে ১০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়েছে। এছাড়া তাদের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।
অপরদিকে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ৬লাখ মানুষের মধ্যে নিন্মঞ্চালের বসবাসরত প্রায় ১লাখ মানুষ বন্যা ও বৃষ্টিতে জমে থাকা পানিতে মানবেতর জীবন যাপন করছে।
পেকুয়া উপজেলার ৭ ইউনিয়নের কয়েক হাজার পরিবার এখন পানি বন্দি। এ দু’উপজেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে সামান্য শুকনো খাবার ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের মাঝে যে পরিমান চাল বিতরণ করা হয়েছে তা খুবই নগণ্য বলে বলে বন্যার্তরা জানিয়েছেন। ##

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT