শিরোনাম :
টেকনাফে পুলিশের উপর হামলাকরে আসামী ছিনতাই : ইউপি সদস্য আটক ফের অস্ট্রেলিয়াকে হারাল টাইগাররা প্রযোজক রাজের বাসায় র‍্যাবের অভিযান ঘর নদীতে পড়ে যাওয়ার চিন্তায় ঘুমাতে পারছেনা চাকমারকুল ইউপির ৩ গ্রামের মানুষ রামুতে অসহায়দের মানবিক সহায়তা দিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক ‘সুজন’ দর্জি দোকানের কর্মচারীথেকে নেতা মনির : ৪ দিনের রিমান্ডে পরীমনির বাসায় অভিযান সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে : র‌্যাব বৌভাতে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে ১৭ বরযাত্রীর মৃত্যু প্রসাধনীর আড়ালে চকরিয়া কুরিয়ারে মিলল ৭০ লক্ষ টাকার ইয়াবা, পাচারকারী আটক সুজন জেলা কমিটির পক্ষ থেকে বন্যাদূর্গতদের মাঝে অর্থ সহায়তা প্রদান

ক্ষতিপূরনের প্রতি চেকে কমিশন নেয় হিসাব রক্ষণ অফিস

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০২০
  • 87 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

মাহাবুবুর রহমান.
জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ভুমি হুকুম দখল অফিসের সব চেক জেলা হিসার রক্ষণ অফিসের মাধ্যমে ব্যাংক একাউন্ট হয়ে গ্রাহকদের কাছে পৌছে। এই প্রকৃয়ায় এল এ শাখাতে নিয়মিত পারসেন্টিস দেওয়ার পরে প্রতিটি চেকে হিসাব রক্ষণ অফিসকেউ দিতে হয় নির্দিস্ট কমিশন। তাই চলমান শুদ্ধি অভিযানে এল শাখার পাশাপাশি হিসার রক্ষণ অফিসের অনিয়ম দূর্নীতি তদন্ত এবং কমিশন গ্রহনকারী কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবী জানিয়েছে ভোক্তভোগীরা।
ঈদগাঁও এলাকা রুহুল আমীন বলেন,কক্সবাজার রেল লাইন প্রকল্পে আমার প্রায় ২ কানী জমি পড়েছে। অন্যান্য এলাকায় জমির মৌজা রেইট বেশি হওয়াতে সেখানে জমির মালিকরা অনেক টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছে তবে বৃহত্তর ঈদগাঁও ইসলামপুর এলাকার মানুষ খুবই ক্ষতিগ্রস্থ। তাই আমরা চেস্টা করেছিলাম এল এ শাখার কমিশন কিছুটা কম দিতে তবে শেষ রক্ষায় হয়নি। আমি সহ সবার কাছ থেকে ১০% থেকে ১৫% কমিশন নিয়েছে এল এ শাখা। তবে সব কাজ শেষ করে জেলা হিসাব রক্ষণ অফিসেও যে আলাদা কমিশন দিতে হয় সেটা আমরা জানতাম না। সেখানে আমাদের প্রতিটি চেকে নির্দিস্ট কমিশন নিয়েছে।মহেশখালীর কালারমারছড়ার বশির আহামদ বলেন,দীর্ঘ দিন পর হলেও সরকার এল এ শাখার অনিয়ম দূর্নীতি ধরছে সে জন্য আমরা খুব খুশি। তবে সেটা যেন মাঝ পথে বন্ধ হয়ে না যায় সেটা কামনা করবো একই সাথে জেলা হিসার রক্ষণ অফিসের কর্মকর্তারা চেক প্রতি যে কমিশন নেয় সেটাও বন্ধ করতে দাবী জানাচ্ছি। নুনিয়ারছড়া এলাকা শাহাবউদ্দিন বলেন,সরকারি কর্মকর্তাদের বেতন বাড়ানো হয়েছে বহুগুন তবুও কেন মানুষের কাছ থেকে জিম্মি করে এভাবে প্রকাশ্য ঘুষ বানিজ্য করা মোটেও উচিত না। মূলত আমরা সাধারণ মানুষ সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাদের কাছে জিম্মি। যদি কমিশন না দি তাহলে নানান ধরনের তাল বাহানা করে হয়রানী করে। তাই এল এ শাখায় যে পরিবর্তনের কথা আমরা শুনছি সেটা যেন হিসাব রক্ষণ অফিসেও প্রভাব পড়ে সেদিকে সরকারের উর্ধতন কতৃপক্ষের দৃস্টি আকর্ষণ করছি।
এ ব্যপারে জেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ আবু তাহের বলেন,আমাদের এখানে চেক প্রতি টাকা নেওয়া হয় সেটা আমার জানা নেই। কেউ করে থাকলে সেটা তার ব্যাক্তিগত ব্যাপার এটা জন্য অফিস দায়বদ্ধ নয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT