করোনা ফলোয়াপ রোগিদের নেই কোন চিকিৎসা : খোঁজ রাখেনা কেউ

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২০
  • 266 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে

মাহাবুবুর রহমান.
কক্সবাজারে করোনা পজিটিভ হয়ে আবার নেগেটিভ হওয়া রোগিদের ফলোয়াপ কোন চিকিৎসা নেই। এমনকি পজিটিভ হওয়ার পরেআগে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে খোঁজ খবর নেওয়া হলেও এখন তেমন কোন গুরুত্বনেই। আবার চিকিৎসা নিয়ে নেগেটিভ হওয়া রোগিদের কোন ধরনের খোঁজ খবর রাখা হচ্ছেনা। ফলে অনেকে অসচেতনতার অভাবে ব্যাপক হারে সাধারণ মানুষের সাথে মেলামেশা এবং কাজ কর্ম করার ফলে শারিরিক ভাবে প্রচন্ড দূর্বল হয়ে পড়ছে। এতে অনেকের মৃত্যু ঝুকিও বাড়ছে। তাই স্বাস্থ্য বিভাগকে আরো সচেতন থেকে করোনা রোগিদের পাশাপাশি করোনা নেগেটিভ হওয়া ফলোয়াপ রোগিদের যথাযত চিকিৎসা নিশ্চিত করার দাবী জানিয়েছে সচেতন মহল।
শহরের বিজিবি ক্যাম্প এলাকার ছানাউল্লাহ বলেন,আমার করোনা পজিটিভ হওয়ার পর স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে ফোন করে কিছু চিকিৎসা পত্র মোবাইলে এসএমএস করে দিয়েছিল। আমি সেভাবে চিকিৎসা করানোর পরে শরীরে আরো কিছু সমস্যা দেখা দেওয়ায় সংশ্লিষ্ট ডাক্তারদের ফোন করলে তারা খুব বিরক্ত হয়ে আইডিসিআর এর নির্দেশনা ছাড়া কোন ঔষধ দেওয়া যাবে না বলে জানান। পরেআমি পরিচিত ডাক্তারের মাধ্যমে চিকিৎসা পত্র নিয়ে সুস্থ হয়েছি। পরে ফলোয়াপ টেস্ট দিয়ে নেগেটিভ হয়েছি। কিন্তু এখনো আমার শরীরের দূর্বলতা কাটেনি। বেশ খারাপ লাগছে মাঝে মধ্যে মাথাঘুরে পড়ে যেতে চায়। আমি বেশ কয়েকজন করোনা পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হওয়া রোগির সাথে কথা বলে জেনেছি তাদেরও একই অবস্থা শরীর খারাপ কিন্তু সে বিষয়ে কোথাও কোন চিকিৎসা নেই। দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকার কলেজ ছাত্রী এবং এনজিও কর্মী রুমানা আক্তার বলেন,আমি করোনা পজিটিভ হওয়ার পরে শরীর খুব খারাপ ছিল। পরে আমার এনজিওর অফিস থেকে আমাকে উখিয়া নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করে ভাল হয়েছি এখন করোনা নেগেটিভ হয়েছে প্রায় ২২ দিন তবে প্রথম দিকে শরীর ভাল লাগলেও দিন দিন আমার শরীরের ওজন কমে যাচ্ছে খাওয়া দাওয়াতে কোন রুচি নেই,সব সময় মাথাঘুরাই। ফলে অফিসও করতে পারিনা। কিন্তু এখন অফিস আমাদের চিকিৎসা করাচ্ছে না কারন আমার ফলোয়াপ রিপোর্ট নেগেটিভ তাই। তাই আমি স্থানীয় মেডিসিন ডাক্তার দেখিয়েছি উনারা আমাদের বেশ কিছু ঔষধ দিয়েছে তবে আমার শরীর কিছুতেই ভাল হচ্ছে না। কিন্তু করোনার কোন লক্ষন নেই। নুনিয়ারছড়া এলাকার ব্যবসায়ি শামসুল আলম বলেন,আমি এবং আমার ছেলে করোনা পজিটিভ হওয়ার পরে এখন নেগেটিভ হয়েছি ১ মাস হবে তবে এখন আমার শরীর প্রচন্ড খারাপ হওয়াতে ৪ দিন আগে চট্টগ্রামে গিয়ে চিকিৎসা করিয়ে এসেছি। সামনে আবারো যাবো সেখানে আমার মেয়ে থাকে তারা বলছে চট্টগ্রামেও অনেক করোনা রোগি নেগেটিভ হওয়ার পরও অসুস্থ হয়ে মারা গেছে। আমার মতে সরকারের উচিত হবে যারা করোনা পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হয় তাদের ও ঠিকমত দেখভাল করা উচিত। এদিকে কক্সবাজার সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত কক্সবাজারে ৪০২০ জন করোনা রোগি সনাক্ত করা হয়েছে তার মধ্যে মারা গেছে ৬৯ জন। আর বান্দরবান,চট্টগ্রামের ৩ টি উপজেলা সহ কক্সবাজারের ৮ উপজেলা মিলে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে করোনা পরীক্ষা করিয়েছে ৩৩ হাজার ৯২৪ জন। তবে ভাল খবর হচ্ছে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ৯৫% এখন সুস্থ আছে। এদিকে কক্সবাজারে করোনা পজিটিভ হয়ে আবার নেগেটিভ হওয়া রোগিদের বিষয়ে জানতে চাইলে সিভিল সার্জন ডাঃ মাহাবুবুর রহমান বলেন,এটা সত্য ফলোয়াপ রোগিদের সরকারি ভাবে চিকিৎসা বা কোন ঔষধ বিষয়ে নির্দেশন নেই। বরং একটা চিঠি ছিল কারো করোনা পজিটিভ হওয়ার পরে ১৪ দিন কোন শারিরিক অসুবিধা না হলে তাকে আবার ফলোয়াপ টেস্ট করাতে হবে না। অর্থাৎ তাকে সুস্থ ধরা যাবে। তবুও আমরা বাস্তবতার খাতিরে ফলোয়াপ টেস্ট করাচ্ছি। তবে ফলোয়াপ রোগিদের জন্য চিকিৎসা নাই এটাও ঠিক না। আমাদের সাথে যোগাযোগ করলে কোন রোগিকে বিনা চিকিৎসায় ফিরিয়ে দিয়েছি এটা কেউ বলতে পারবেনা। তবে একটা কথা ঠিক বর্তমান করোনা পরিস্থিতি আল্লাহর রহমতে আমাদের নিয়ন্ত্রনে আছে। আগেমত এখন আর করোনা রোগিরা চিকিৎসা পাচ্ছে না এই কথা কেউ বলতে পারবেনা। এদিকে বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার বলেন,করোনা নেগেটিভ হয়েছে এই খবর শুনা মাত্র বেশির রোগি ঘরথেকে বের হয়ে যায় এবং পরিবারের সাথে অবাধে মেলামেশা শুরু করে নিয়মিত কার্যক্রম শুরু করে তাতে আবার দূর্বল হয়ে পড়ে। কিন্তু স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশনা আছে ফলোয়াপ টেস্টা ১৪ দিন এবং ৭ দিন পর পর ২ বার সে হিসাবে ২৮ দিন বিশ্রামে থাকার। সেটা না মানার কারনে অনেকে আবার অসুস্থ হয়ে পড়ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT