শিরোনাম :
কক্সবাজারে বিমান উড্ডয়নের সময় ধাক্কাতে ২ টি গরুর মৃত্যু : বড় দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা চকরিয়ায় ব্যালট পেপার বিনষ্টের অভিযোগে মামলা: প্রিজাইডিং অফিসার কারাগারে খুরুশকুল এলাকায় অভিযানে ১ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-আটক ১ কস্তুরাঘাট সংলগ্ন বাকঁখালী নদী এখন প্রভাবশালীর ব্যাক্তিগত জমি বদরখালীতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় নৌকা প্রার্থীর ভাগ্নেকে পিটিয়ে হত্যা ঈদগাঁওতে শীতমৌসুমে গরম কাপড় কিনতে ক্রেতাদের ভীড় চকরিয়ায় ১০ ইউপিতে আ‘লীগ ৫ স্বতন্ত্র ৫ মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যাচেষ্টা, মহেশখালীর মেয়রসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা পিএমখালীতে ইয়াবা সহ আটক হোসেনের সিন্ডিকেট এখনো অধরা নাফ নদ থেকে ১ কেজি আইসসহ পাচারকারী আটক

করোনায় বন্ধ জেলার ক্রীড়াঙ্গন : সহায়তা পায়নি খেলোয়াড়রা

রির্পোটার:
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, এপ্রিল ২৭, ২০২০
  • 82 বার সংবাদটি পড়া হয়েছে
?

মাহাবুবুর রহমান.
করোনা পরিস্থিতির কারনে থমকে গেছে জেলার ক্রীড়াঙ্গন। বাংলাদেশে ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগি সনাক্ত হওয়ার পর থেকে কার্যত স্থগিত হয়ে গেছে কক্সবাজারে সব ধরনের খেলাধুলা। এতে দেড় মাসের বেশি সময় ধরে জেলায় কয়েক শত নিয়মিত খেলোয়াড় খেলাধুলার বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি অনেক পেশাদার খেলোয়াড় বেকার হয়ে পড়েছে। আবার কবে নাগাড় খেলাধুলা সচল হবে তারও কোন নিশ্চয়তা নেই। এদিকে জেলায় করোনা পরিস্থিতির কারনে বেকার হয়ে ঘর বন্ধি হয়ে পড়েছে অনেকে পেশাদার খেলোয়াড়রা। আর এই পরিস্থিতিতে অনেকে সরকারের কাছ থেকে নানান ভাবে সহায়তা পেলেও জেলার ক্রীড়াবিদরা তেমন কোন সহায়তা পায়নি বলেও দাবী করেন অনেকে।
জেলা ফুটবল দলের অধিনায়ক কৃতি ফুটবলার ইসমাঈল জাহেদ বলেন,কক্সবাজারে প্রায় ৪০০ জনের মত পেশাদার ফুটবলার আছে। যারা প্রতি নিয়ম ফুটবল খেলেই টাকা আয় করে। এছাড়া ক্রিকেট,ভলিবল,ইনডোর গেইমে অনেক খেলোয়াড় আছে তবে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে সবাই ঘরে বন্ধি। অনেকে সরকারের কাছ থেকে সহায়তা পেলেও জেলার খেলোয়াড়রা সহযোগিতা পেয়েছে তেমন কোন নজির নেই। এদিকে জেলার এক সময়ের কৃতি ফুটবলার ও বর্তমান জেলা ক্রীড়া সংস্থার কোষাধ্যক্ষ রাশেদ হোসাইন নান্নু বলেণ,এটা সত্য দেশের চলমান করোনা পরিস্থিতির কারনে সব খেলাধুলা বন্ধ। শুধু কক্সবাজার নয় সারা দেশের একই পরিস্থিতি। এটা ঠিক অনেক পেশাদার খেলোয়াড় আছে যারা নানান ভাবে সমস্যায় পড়বে। আমি খেলোয়াড়দের কিছু করার বিষয়ে জেলা প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে দাবী জানাচ্ছি। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য এবং ক্রিকেট সম্পাদক অধ্যাপক জসিম উদ্দিন বলেণ,জেলায় গতবারের ক্রিকেট লীগে টোকেন তুলেছিল প্রায় ৪০০ খেলোয়াড় সে হিসাবে সবাই পেশাদার ক্রিকেটার। বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারনে কোন খেলাধুলা আয়োজন করা যাচ্ছেনা। ফলে সবাই বেকার বাড়িতেই আছে। আর আমার জানা মতে কোন ক্রিকেটার কোন প্রকার সহায়তা পায়নি।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় বলেণ,সহায়তা দূরে থাক এ পর্যন্ত কোন কর্মকর্তা একটা ফোন করে খবর ও নেয়নি। এ ব্যপারে ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি আবছার উদ্দিন বলেন,করোনা পরিস্থিতির কারনে কক্সবাজার বা বাংলাদেশ নয় পুরু বিশ^ ক্রীড়াঙ্গন এখন বন্ধ। তবে অনেক উন্নত দেশে খেলোয়াড়দের জন্য বিশেষ বরাদ্ধ দেওয়া হচ্ছে বলে জানতে পারছি আমাদের দেশেও খেলোয়াড় এবং ক্রীড়াঙ্গনের জন্য বিশেষ বরাদ্ধ রাখা দরকার। এছাড়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে কিছু প্রণোদনা বা বিশেষ কিছু করার উদ্দোগ নেওয়া হবে।
এ ব্যপারে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন বলেণ,ইতি মধ্যে প্রায় ৬ থেকে ৭০ জন সাবেক অসহায় দুস্থ খেলোয়াড়দের মাঝে সরকারি খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। আমি কয়েকটি সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্টানে যোগাযোগ করছি সেখান থেকে সাড়া পেলে আবারো সহায়তা অব্যাহত রাখবো। তবে বর্তমান প্লেয়ারদের তেমন সহায়তা করা যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এই বিষয়ে আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 cox71.com
Developed by WebArt IT